hatta

news

ঝিনাইদহের শৈলকূপায় ছেলেকে কুপিয়ে আহত করে সাজেদা খাতুন নামের এক নারীকে শ্বাস রোধ করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। স্বামীর অধিকার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করার একদিন পর সোমবার রাতে সাজেদা খাতুনকে তার বাড়ি থেকে অপহরণ করে হত্যা করা হয়। শৈলকুপা উপজেলার বাগুটিয়া গ্রামের মাঠে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আহত জিন্নাহ হোসেনকে শৈলকুপা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
আহত জিন্নাত হোসেন ও শৈলকূপা থানার ওসি ছগির মিয়া জানান, সোমবার রাতে একদল দুর্বৃত্ত শৈলকুপার বাগুটিয়া গ্রামের সাজেদা খাতুনের বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় সাজেদা খাতুনকে আগ্নেয়াস্ত্রের মুখে অপহরণ করে তারা। এ সময় তার ছেলে জিন্নাহ হোসেন বাধা দিলে সন্ত্রাসীরা তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক আহত করে। পরে বাগুটিয়া গ্রামের মাঠে এক কলাবাগানের ভেতর নিয়ে সন্ত্রাসীরা সাজেদা খাতুনকে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে ফেলে রেখে যায়।
আজ মঙ্গলবার সকালে বাগুটিয়া গ্রামের মাঠে কলাবাগানের ভেতর সাজেদা খাতুনের লাশ পড়ে থাকতে দেখে গ্রামবাসী। খবর পেয়ে পুলিশ সকাল ১১টার দিকে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। আহত ছেলে জিন্নাহ হোসেনকে মারাত্মক আহত অবস্থায় শৈলকুপা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে পুলিশ ধারণা করছে।
এর আগে গত রবিবার ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবে সাজেদা খাতুন এক সংবাদ সম্মেলন করে লিখিত অভিযোগ করেন, শৈলকুপার আবাইপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম ৩০ বছর আগে তাকে বিয়ে করেন। কিন্তু তিনি স্ত্রী হিসেবে তাকে স্বীকৃতি দেননি। কিন্তু সাজেদা স্বামী হিসেবে তাকে দাবি করে আসছিলেন। স্বামীর দাবিতে তিনি সাবেক চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন। মামলাটি আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। ওই সংবাদ সম্মেলনের একদিন পর সাজেদাকে সন্ত্রাসীরা তার বাড়ি থেকে অপহরণ করে হত্যা করে।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here