.nojrul father in lawনারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন প্যানেল মেয়র ও কাউন্সিলর নজরুল ইসলামসহ সাতজনকে নূর হোসেন এবং র‍্যাব তুলে নিয়ে গিয়ে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ করেছেন নজরুলের শ্বশুর শহীদুল ইসলাম ওরফে শহীদ চেয়ারম্যান। নারায়ণগঞ্জের রাইফেল ক্লাবে রবিবার দুপুরে সাংবাদিকদের কাছে এ অভিযোগ করেন তিনি।
নজরুল ইসলামের শ্বশুর শহীদ চেয়ারম্যান বলেন, ‘নূর হোসেন র‍্যাবকে ছয় কোটি টাকা দিয়েছে। এ ছয় কোটি টাকার জন্য আমার জামাতাকে (মেয়ের স্বামী) হত্যা করা হইছে। র‍্যাবের ওই অসাধু কর্মকর্তাকে ধরলে সব তথ্য পাওয়া যাবে। তাদের অনতিবিলম্বে গ্রেপ্তার করার জন্য আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন জানাচ্ছি।’
তিনি আরো বলেন, ‘এর সাথে সাবেক এমপি গিয়াসউদ্দিন ও নূর হোসেনের দোসর সুফিয়ানও জড়িত। আমি তাদেরও বিচার চাই। কেননা সুফিয়ানের সাথে নূর হোসেনের কথাবার্তার রেকর্ড আছে। এ ছাড়া আসামি হাসু, ইকবাল গিয়াসের লোক।’
যাদের সন্দেহ করছেন, তাদের নাম মামলায় নেই কেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে শহীদ চেয়াম্যান বলেন, ‘আমি মামলা করতে চেয়েছি। থানার ওসি মামলা নেয় না। বলে- র‍্যাব কর্মকর্তাদের নামে মামলা করলে মামলা বাতিল হয়ে যাবে। তারপর দুই দিন ঘুইরা ছয়জনের নামে মামলা করছি। আমি ১৩ জনকে আসামি করেছিলাম।’
বাদ দেওয়া হয়েছে কাদের নাম? জানতে চাইলে শহীদ চেয়ারম্যান বলেন, ‘বাদ দেওয়া হইছে র‍্যাব-১১-এর ওই কর্মকর্তাসহ শাহজাহান, নূর উদ্দিন (নূর হোসেনের ভাই), জামাল উদ্দিন, আলিম, সানাউল্লাহ সানা, আরিফুল হক হাসান এদের নাম।’
শহীদ চেয়ারম্যান হত্যাকাণ্ডে জড়িত র‌্যাব সদস্যদের শনাক্ত করে শাস্তির দাবি করেন। এই ঘটনার পর থেকে তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলেও জানান।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here