image_14112.image_1400_386820

বিদেশি মুদ্রার সঞ্চিতি বা রিজার্ভ এক হাজার ৭০০ কোটি (১৭ বিলিয়ন) ডলারের নতুন রেকর্ড গড়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দিনের শুরুতে রিজার্ভ এই অঙ্কে পৌঁছায়। সোমবার দিন শেষে রিজার্ভের পরিমাণ ছিল এক হাজার ৬৯৪ কোটি ডলার।

জানা যায়, সার্কভুক্ত দেশগুলোর বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের হিসাবে বাংলাদেশের অবস্থান এখন দ্বিতীয়। প্রথম অবস্থানে রয়েছে ভারত। তাদের রিজার্ভ ২৮ হাজার ৪০০ কোটি ডলার। তার পরই বাংলাদেশ। আর তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে পাকিস্তান। তাদের রিজার্ভ হচ্ছে ১২০০ কোটি ডলারের মত।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে, কোরবানির ঈদের আগে প্রবাসীরা স্বজনদের কাছে বেশি করে রেমিট্যান্স পাঠানোর ফলে রিজার্ভে এমন উন্নতি ঘটেছে। প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী, চলতি অক্টোবর মাসের ১৮ তারিখ পর্যন্ত ৮০ কোটি ডলার রেমিট্যান্স দেশে এসেছে। এর আগের মাসজুড়ে রেমিট্যান্স এসেছিল ১০৩ কোটি ডলার।

গত ১৩ আগস্ট দেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো রিজার্ভ এক হাজার ৬০০ কোটি ডলার অতিক্রম করে। এরপর এশিয়ান ক্লিয়ারিং ইউনিয়ন বা আকুর দেনা পরিশোধের পর তা এক হাজার ৬০০ কোটি ডলারের নিচে নেমে আসে। গত ২২ সেপ্টেম্বর রিজার্ভ ফের এক হাজার ৬০০ কোটি অতিক্রম করে।

আন্তর্জাতিক মানদণ্ড অনুযায়ী, একটি দেশে তিন মাসের আমদানি ব্যয় মেটানোর প্রয়োজনীয় বিদেশি মুদ্রা মজুদ থাকতে হয়। বাংলাদেশ ব্যাংকের বর্তমান বিদেশি মুদ্রার মজুদ (এক হাজার ৭০০ কোটি ডলার) দিয়ে ছয় মাসের আমদানি ব্যয় মেটানো যাবে বলে আশা করছেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তারা।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here