শিগগিরিই বি,এন,পি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া দেশ ত্যাগ করতে যাচ্ছেন বলে গোপন সূত্রে খবর পাওয়া গেছে। সূত্র জানিয়েছে, বি্রোধীজোট নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া দেশে  সন্ত্রাসী কার্য্য কলাপ করার যে পরিকল্পনা করেছিল তা গয়েশ্বর রায় সব ফাঁস করে দিয়ছেন সেই কারণেই গোয়েন্দাদের তথ্য অনুযায়ী সারা বাংলাদেশে সরকার প্রতিরোধ করেন অত্যন্ত সাফল্যের সাথে ইতি মধ্য বি,এন,পির অনেক নেতা  বিদ্রোহ করেছেন অনেক শরীক দল  বিরোধীজোট ছাড়ার পথে। এদিকে, বি,এন,পি প্রেস ব্রিফিং করে নানা রকম হুমকি দিলেও কার্যত তাদেরকে মাঠে দেখা যায় নি। এমনকি বিগত বছরের সবচে নিম্ন উপস্থিতি ছিল বি,এন,পির গুলশান অফিসে অন্যদিগে কেন্দ্রিয় কার্যালয়ে ছিল না কোন নেতা কর্মি।  কেন্দের সাথে কোন  যোগাযোগ ছিল না তৃণমূল নেতা কর্মিদের তারা বিচ্ছিন্ন ছিলেন দলের সকল কার্য্যক্রম থেকে সরকারের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

গোয়েন্দা সংস্থার সূত্র জানিয়েছে, খালেদা জিয়া দেশে অরাজকতা সৃষ্ট্রি  করায় সাধারন জনগন ক্ষিপ্ত। । এদিকে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও আর আগের মতো খালেদার কথা শুনছে না। তারা আজকের বিরোধীজোটের বিদ্রোহীদের দমনের ক্ষেত্রে পূর্বের চেয়ে বেশি দক্ষতা দেখিয়েছে।

সূত্র আরও জানায়, খুব শিগগিরই বেগম খালেদা জিয়া দেশ ত্যাগ করে লন্ডনে তার ছেলের কছে চলে যাবেন।সুত্র আরো জানায় তারা নাকি  ৭৫ সালের মতো ঘটনা ঘটাতে সকল  পরিকল্পনা করেছিল যা গয়েশ্বর রায় ফাঁস করে দিয়েছেন, অন্যান্য যে সকল নেতা এই পরিকল্পনার সাথে জড়িত তারা গোপনে সরকারের সাথে যোগাযোগ করে নিজেদের রক্ষা করার জন্য সরকারের কাছে ধর্না দিচ্ছেন এবং বেগম খালেদা জিয়ার যাবতীয় তথ্য সরকারের কাছে ফাঁস করে দিচ্ছেন,তারা অনেকে নিজেকে রক্ষার সার্থে রাজ সাক্ষী হতেও রাজি হয়েছেন যা ইতি মধ্য বেগম খালেদা জিয়া জানতে পেরেছেন এবং তিনি বর্তমানে মহা চিন্তায় পড়েছেন কারন অন্যদিগে দূর্নীতির মামলায় তার সাজা হওয়ার সম্ভাবনা প্রায় ১০০% আর এই দিগে তার দলের নেতাদের বিদ্রোহের কারনে তার বিরুদ্ধে হত্যা মামলা হতে পারে বলে আভাস দিয়েছে তারা। তবে কিভাবে, কোন প্রক্রিয়ায়, ঠিক কখন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা হবে সে বিষয়ে জানায়নি সূত্রটি।

সবমিলিয়ে খালেদার দলের নিয়ন্ত্রণ ধীরে ধীরে হ্রাস পাচ্ছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।  সব ক্ষেত্রে দলে তার বিদ্রোহ দেখা দিয়েছে। আর বিরোধীজোট বিবৃতি দিয়ে সর্বোচ্চ আন্দোলনের ঘোষণা দিলেও  তাদের কর্মকান্ড ও অবস্থান শুধু মাত্র মিডিয়া কেন্দ্রীক হয়ে পরায় কার্যত  তার দলের নেতা  কর্মিরা হতাশ ও নিরাপত্তাহীন হয়ে পরেছে দলটি। বেগম খালেদা জিয়া নানান চেস্টা করেও তার ছেলেদের ও তার দুর্নীতির মামলা শেষ করতে না পারায় এবং অতি সহসা জেলে যাওয়ার ভয়ে নিজেকে রক্ষা করতে ছেলের পথ অনুসরন করতে যাচ্ছেন বলে সুত্র নিচ্চিত করেছেন।  সম্ভবত দলের চেয়ারম্যান হতে যাচ্ছেন বি, চৌধুরী, কারন বেগম খালেদা জিয়ার  পরিবারের আর কেউ নাই যে দলের চেয়ারম্যান হবেন।

শেয়ার করুন

14 COMMENTS

  1. এটা এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র। মাত্রা অতিরিক্ত অপরাধী মানুষকে আল্লাহ পছন্দ করেন না। আর বাংলাদেশের মানুষ তো হাফ ছেড়ে বাঁচবে।

  2. Desher r desher manuser jei khoti koresen apnader madom tar hisab take dite hobei. Palie baste parbena ai faltu mohila. Chamcha tora 1ta murkho jsc togo madom. Tora sari churi pore golay dori dia morisna ken bolto?
    Paros to khali chorer moto hamla kore niriho manus ke pure marte.
    Abar andoloner sopno dekhe chagol ra. Kha lada Chagoler ghare joal dise, r chagol kapor nosto kore dise vare.

  3. Really! it is heart lacerating or heart breaking to comment on the consequences of the so called ‘Oborod’ or ‘Hartal’, every man of sense and justice must hate the so called political programmeconveyed by BNP or Jamat as their crossing the limit has taken away the lives of so many innocent people who were harmless and ‘Islam’ never supports killing innocent people this way. Almighty Allah is the judge of all judges and He must not forgive the killers of the innocent this way! To remove ‘injustice’ you cannot do more injustice.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here