জনতার নিউজ
মুক্তিযোদ্ধাদের নামের আগে ‘বীর’ শব্দ ব্যবহারে তদবির করব : তথ্যমন্ত্রী

মুক্তিযোদ্ধাদের নামের আগে ‘বীর’ শব্দটি ব্যবহারে সরকারি স্বীকৃতির জন্য তদবির করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। আজ মঙ্গলবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে জেলা পরিষদের ‘৫২ থেকে বাংলাদেশ’ টেরাকোটার ভাস্কর্য উদ্বোধন ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, মুক্তিযুদ্ধে যারা গিয়েছেন তারা প্রত্যেকেই সাহসী। তারা প্রত্যেকেই বীর। তাই সকল মুক্তিযোদ্ধাদের নামের আগের বীর শব্দটি ব্যবহার করার জন্য সরকারি স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য আমি তদবির করব। এতে তার মৃত্যুর পরও শুধুমাত্র তার নাম দেখে সবাই জানতে পারে যে তিনি একজন মুক্তিযোদ্ধা।

এ সময় তিনি দেশের সব জেলার মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারদের ‘নামের আগে বীর ব্যবহারে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি চাই’ স্লোগান দেওয়ার আহ্বান জানান।

যুদ্ধাপরাধীদের বিচারপ্রক্রিয়া সম্পর্কে হাসানুল হক ইনু বলেন, যতদিন না পর্যন্ত যুদ্ধাপরাধীদের বিচার সম্পন্ন না হবে ততদিন আমাদের যুদ্ধ চলবে। তাই যতদিন বাঁচবো রাজাকারদের রাজাকার বলবোই। রাজাকাররা বুড়ো হলেও বদলায় না। রাজাকাররা হল শয়তানের মতো। যতদিন বাঁচব, রাজাকারদের রাজাকারই বলব।

এ ছাড়াও স্বাধীনতাবিরোধীদের দোসরদের তীব্র নিন্দা জানিয়ে ইনু বলেন, যারা রাজাকারদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে স্বাধীনতা দিবস পালন করেন তারা নব্য রাজাকার। আর যারা তাদের সঙ্গে নিয়ে ২১ ফেব্রুয়ারি পালন করে তারা পাকিস্তানি ভূত।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের উদ্যোগে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের প্রশাসক আবদুল হাই। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) গাউছুল আজম, নারায়ণগঞ্জ জেলা ইউনিট কমান্ডার মোহাম্মদ আলী, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনসহ জেলার মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের সদস্যরা।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here