আপনি জানেন কি? পুরুষের থেকে নারীর উত্তেজনা বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়।

নারীর কামনা আশ্চর্যজনকভাবে বাড়ে এবং দীর্ঘক্ষণ স্থায়ী হয়। আর বিশেষজ্ঞদের গবেষণায় এটাই প্রমাণিত হয়েছে (৩১ শতাংশ, একটি আন্তর্জাতিক জরিপ অনুযায়ী)। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

তাই ওইসব পুরুষদের বলছি, যারা নতুন বিয়ে করেছেন এবং স্ত্রী খুব লাজুক প্রকৃতির হওয়ায়  আশা পূরণ হচ্ছে না। অথবা যারা সঙ্গীকে নিয়ে একান্তে কাটাতে চান,  আপনাদের জন্য থাকছে সঙ্গীর কামনা বাড়ানোর গোপন স্পেশাল তথ্য!

ভায়াগ্রা ছাড়াই সঙ্গীর উত্তেজনা বাড়ানো কিছু কৌশল নিম্নে আলোচনা করা হল;

আপনি হয়তো জানেন নারীদের ভগাঙ্কুরে (clitoris) বা যৌনাঙ্গে শেষে আট হাজার সংবেদনশীল স্নায়ু রয়েছে। প্রতিটি নারীর ভগাঙ্কুরের উত্তেজনার প্রয়োজন হয়। এটা রক্তসংবহন করে এবং নারীকে অতি উত্তেজিত করে তোলে।

গবেষণায় দেখা গেছে, ৭৫ শতাংশ নারীর ক্লিটোরিস বা ভগাঙ্কুর (clitoral) উদ্দীপনার প্রয়োজন প্রচণ্ড উত্তেজনা পৌঁছানোর জন্য।

নারীর শরীরের সবচেয়ে কামাত্মক এলাকা স্তন। আর যদি নারীদের প্রচণ্ড উত্তেজনায় পৌঁছাতে চান তাহলে অবশ্যই এই সংবেদনশীল স্থানে আদর করতে হবে। প্রচণ্ড উত্তেজনা দ্রুত পৌঁছাতে চাইলে এটাই সঠিক উপায়।

এনকেলস (ankles) এবং অ্যাকিলিসের (Achilles) কণ্ডরা মধ্যবর্তী এলাকা নারীর উদ্দীপনা বাড়াতে সাহায্য করতে পারে। শুধু তাই নয়, তাদের পা এবং পাতার নিচের অংশও অত্যন্ত কামাত্মক হতে পারে। গবেষণায় এটাও প্রমাণিত হয়েছে।

এছাড়া নারীদের আকর্ষণ করতে আপনি মনোযোগ অন্যদিকে স্থির করতে পারেন। যেমন: চুম্বনে ও  আলিঙ্গনেও তার উত্তেজনা বাড়ানো সম্ভব।

নারীর গোপন অঙ্গ হিসেবে ঘাড়কেও চিহ্নিত করতে পারেন। এ স্থানে আলতো হাতের ম্যাসাজ নারীর উত্তেজনা অনেকটাই বাড়িয়ে দেয়।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here