ভারত-বাংলাদেশ পাসপোর্ট ইস্যু বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। ১৫ নভেম্বরের পর নতুন করে আর কোন আবেদন নেয়া হবে না। বাসস।

ইতোমধ্যেই যারা আবেদন করেছেন বা ১৫ নভেম্বরের মধ্যে আবেদন করবেন তারা এই বিশেষ পাসপোর্ট পাবেন। ৩০ নভেম্বরের পর নতুন করে আর কোন এ ধরনের পাসপোর্ট দেয়া হবে না। তবে এই বিশেষ পাসপোর্টধারীরা মেয়াদোত্তীর্ণ না হওয়া পর্যন্ত এটি ব্যবহার করতে পারবেন। তবে বাংলাদেশ সরকার কয়েক বছর আগেই এই পাসপোর্ট ইস্যু বন্ধ করে দিয়েছে।

নয়াদিল্লীতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সূত্রের খবরে বলা হয়, ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে সংশোধিত ভ্রমণ চুক্তি অনুযায়ী ভারত-বাংলাদেশ পাসপোর্ট ইস্যু বন্ধ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত সরকার।

উল্লেখ্য, ১৯৭২ সালের আগস্টে দু’দেশের মধ্যে এই পাসপোর্ট ব্যবস্থা চালু হয়। বাংলাদেশ সীমান্তসংলগ্ন পশ্চিমবঙ্গ, ত্রিপুরা, আসাম, নাগাল্যান্ড, মনিপুর, মিজোরাম, মেঘালয় এবং অরুনাচল প্রদেশের বাসিন্দাদের এই পাসপোর্ট দেয়া হতো। এই পাসপোর্টের মাধ্যমে ভারতীয় নাগরিকরা একমাত্র বাংলাদেশে যেতে এবং বালাদেশি নাগরিকরা কেবল ভারতে আসতে পারেন।

সূত্র জানায়, কয়েক বছর আগেও ভারতের প্রতিটি রাজ্যে মাসে প্রায় ৩শ’ থেকে ৪শ’টি করে ভারত-বাংলাদেশ পাসপোর্টের আবেদন জমা পড়লেও ইদানীং তা কমে ৪০-৫০টিতে দাঁড়িয়েছে।

ঢাকায় ইমিগ্রেশন অ্যান্ড পাসপোর্ট অধিদফতরের পরিচালক রফিকুল ইসলাম জানান, দু’দেশের মধ্যে সম্পাদিত ভ্রমণ চুক্তি অনুযায়ী প্রায় চার বছর আগেই বাংলাদেশ থেকে এ ধরনের পাসপোর্ট ইস্যু বন্ধ হয়ে গেছে।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here