ভারতের ঝাড়খণ্ডে গো-রক্ষার নামের এক মুসলিমকে হত্যার দায়ে ১১ গো-রক্ষকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশটির আদালত। গো-মাংস পরিবহনের জন্য গত বছর ৫৫ বছর বয়সী আলিমুদ্দিন আনসারী নামে এক ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যা করা করেছিল কট্টর হিন্দুদের একটি গ্রুপ। খবর বিবিসি।

ভারতে তথাকথিত গো-রক্ষার নামে এ ধরনের হামলার ঘটনায় পুলিশের তদন্তে দেখা গেছে, যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয় তাদের পরে খালাস করে দেওয়া হয়েছে। তবে আনসারীকে হত্যার ঘটনায় ১২ জনকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। যে ১১ জনের সাজা হয়েছে তাদের ছাড়া বাকি একজনের ব্যাপারে আদালত এখনও কোনো সিদ্ধান্ত দেয়নি। অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি একজন কিশোর।

এই মামলায় সরকারি আইনজীবী সুশীল কুমার শুক্লা ভারতের একটি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে বলেছেন, আমরা সর্বোচ্চ শাস্তি চেয়েছিলাম আদালতের কাছে। কিন্তু আদালত অভিযুক্ত একজনের বিরুদ্ধে কোনো শাস্তির কথা বলেনি। কারণ, তার বয়স ১৬ থেকে ১৮।

নিহত মুসলিম আলিমুদ্দিন আনসারীর ছেলে বলেছেন, আদালতের রায়ে তার পরিবার “সন্তুষ্ট” তবে রাজ্য সরকারের কাছ থেকে কোনো ধরনের ক্ষতিপূরণ না পাওয়ায় তারা অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। রায়ের পর আদালতের বাইরে আনসারীর স্ত্রী মরিয়ম খাতুন সাংবাদিকদের বলেছেন, তার স্বামীর মৃত্যু একটি মর্মান্তিক ঘটনা এবং এতে তাদের বড় ধরনের ক্ষতি হয়েছে। তবে আমরা আর রক্তপাত চাই না।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here