রাজধানীর সবুজবাগে স্বামীর সঙ্গে নিজের বোনের পরকীয়া প্রেমের কারণে নিজ সন্তানকে হত্যা করে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার সকালে সবুজবাগের একটি বাড়ি থেকে গৃহবধূ শান্তনা বেগম (২৭) এবং তার মেয়ে মাহফুজার (২) ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
 
ওই গৃহবধূর স্বামী মামুন মিয়া। দুইদিন আগে মামুন মিয়া শান্তনার বোনকে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ায় এ হত্যা এবং আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে। এদিকে নিহত শান্তনার স্বামী মামুন মিয়াকে গতকাল বিকাল সোয়া পাঁচটার দিকে রাজধানীর উত্তরখান এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
 
জানা গেছে, মামুন মিয়া সবুজবাগ এলাকায় ক্যাবল অপারেটর ও ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়ার কাজ করেন। তিনি স্ত্রী কন্যাসহ সবুজবাগের আহম্মদবাগ এলাকার ৩৬/৩/সি টিনসেড বাড়িতে ভাড়া থাকেন। ওই বাসায় তাদের সঙ্গে সম্প্রতি শান্তনার বোন বসবাস করা শুরু করেন। গত রবিবার মামুন শান্তনার ছোটবোনকে নিয়ে পালিয়ে যান। এই ঘটনা সহ্য না করতে পেরে সোমবার গভীর রাতে নিজ ঘরে শান্তনা তার মেয়েকে প্রথমে গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যা করে পরে নিজে আত্মহত্যা করেন। গতকাল সকালে পুলিশ এ ঘটনা জানতে পেরে ওই বাসা থকে তাদের লাশ উদ্ধার করে। পরে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।
 
সবুজবাগ থানার ওসি আব্দুল কুদ্দুস ফকির  জানান, প্রাথমিকভাবে পুলিশ ধারণা করছে বোনের সঙ্গে স্বামীর পরকীয়ার ঘটনা সহ্য না করতে পেরে শান্তনা তার মেয়েকে নিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। তবে ময়নাতদন্ত রিপোর্ট না পেলে মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না।
 
তিনি আরো জানান, এ ঘটনার পর পুলিশ মামুন মিয়া এবং শান্তনার বোনকে গতকাল বিকাল সোয়া পাঁচটার দিকে রাজধানীর উত্তরখানের ময়লার ট্যাগ এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছে। তাদেরকে সুবজবাগ থানায় আটক রাখা হয়েছে। আজ বুধবার তাদের আদালতে হাজির করা হবে।
শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here