জনতার নিউজঃ

বেতাগীতে স্কুলে ঢুকে শিক্ষিকাকে গণধর্ষণ

স্বামীকে আটকে রেখে উপজেলার মোকমিয়া ইউনিয়নের উত্তর করুনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক শিক্ষিকাকে গণধর্ষনের ঘটনা ঘটেছে। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পুলিশ প্রহরায় ঐ শিক্ষিকাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। এলাকায় ও শিক্ষক সমাজে ক্ষোভ বিরাজ করছে। পুলিশ সুপার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

জানা গেছে, উত্তর করুনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ঐ সহকারী শিক্ষিকা তার স্বামীর (ভারতীয় নাগরিক) সঙ্গে বৃহস্পতিবার দুপুরে স্কুল ছুটির পর বিদ্যালয়ের বারান্দায় কথা বলছিলেন। এ সময় কতিপয় যুবক সন্দেহবশত সেখানে জড়ো হয়। তারা স্কুলের ভেতর প্রবেশ করতে চাইলে ঐ শিক্ষিকা প্রধান ফটকে তালা লাগিয়ে দেন। তালা ভেঙে ৬-৭ যুবক ভেতরে ঢুকে তার স্বামীকে এলোপাতাড়ি মারধর করে তার পরিচয় জানতে চায়। পরে শিক্ষিকার স্বামীর পরিচয় জানার পরও একটি কক্ষে তাকে আটকে রাখে। অপর একটি কক্ষে শিক্ষিকাকে নিয়ে যুবকরা উপর্যুপরি ধর্ষণ করে। ধর্ষণের পর যুবকরা চলে গেলে তারা বের হয়ে বিষয়টি বেতাগী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে (ইউএনও) জানান। ইউএনও বেতাগী থানা পুলিশকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন। পরে স্বামীকে নিয়ে শিক্ষিকা থানায় গিয়ে নিজে বাদী হয়ে ৬ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা করেন।

আসামিরা হলেন, হোসনাবাদ ইউনিয়নের কদমতলা গ্রামের মোঃ হিরন বিশ্বাসের ছেলে সুমন বিশ্বাস (৩৫) আব্দুল বারেক মিয়ার ছেলে মোঃ  রাসেল (২৪) আঃ কুদ্দুস কাজীর ছেলে সুমন কাজী (৩০) মোঃ সুলতান হোসেনের ছেলে মোঃ রবিউল (১৮) আঃ রহমানের ছেলে মোঃ হাসান (২৫) ও মোঃ রহমান হাওলাদারের ছেলে মোঃ জুয়েল (৩০)। স্থানীয়রা জানায়, এরা যুবলীগ ও ছাত্রলীগের সঙ্গে জড়িত রয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে দশটায় বেতাগী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার পরে শুক্রবার সকাল ১১টায় ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পুলিশ পাহারায় তাকে বরগুনায় নিয়ে যাওয়া হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এম.এম মাহমুদুর রহমান জানান, ঘটনার পর পর শিক্ষিকা আমার কাছে এসেছিলেন। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে তাকে থানায় পাঠিয়েছি। বেতাগী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মামুন অর রশিদ জানান, এ বিষয়ে মামলা নেওয়া হয়েছে। আসামি গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। শুক্রবার সকাল ৯ টায় বরগুনা জেলা পুলিশ সুপার বিজয় বসাক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ ঘটনায় এলাকাবাসী ও শিক্ষক সমাজে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে।

এদিকে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি জড়িতদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে আজ থেকে তিন দিনব্যাপী কালো ব্যাজ ধারণ ও রবিবার ১টায় উপজেলা পরিষদের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করবে।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here