হাসান রাহমান মারজান
জনতার নিউজঃ logo-jn1

সিলেটের পূর্ব জিন্দাবাজারে নেহার মার্কেটের আলোচিত ডাকাতির ঘটনায় ছাত্রদল ক্যাডার তিলক চৌধুরীসহ আরো ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।শনিবার ভোররাতে জেলা পরিষদের সামন থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। ধৃতরা হচ্ছে-নগরীর মির্জাজাঙ্গাল স্বপ্নীল ৭০ নং বাসার রাকেশ চৌধুরীর প্ত্রু তিলক চৌধুরী (২৩), তার সহযোগী হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ থানার দেবপাড়া (মৌলভীবাড়ি) বালিধারার হাজি মোজতবা আলীর পুত্র বর্তমানে ঢাকা পল¬বী থানার মীরপুর এলাকার ৪ নং রোডের হাইপেরিয়াম বিল্ডিংয়ের পল¬বী ৬১/১ নং বাসার বাসিন্দা হাফিজ আল-মিছবাহ (২৫) ও সিলেটের ওসমানীনগর থানার ইছবপুর গ্রামের মুহিবুর রহমানের পুত্র মোঃ মামুন আহমদ (২৫)।এসময় পুলিশ তাদের ব্যবহৃত (ঢাকা মেট্রো-খ-১১-২৬২৭) নম্বর প্রাইভেট কারটি জব্দ করে কোতোয়ালী থানায় নিয়ে যায়।পুলিশ জানায়,গতকাল ভোররাত ৪ টার দিকে নগরীর বন্দরবাজার রংমহল টাওয়ারের পশ্চিম পাশের মহাজন পট্রির গলির মুখে ৪/৫ জন আরোহীসহ একটি প্রাইভেট কার দেখতে পেয়ে পুলিশ তাদের থামার জন্য বলে। এ সময় পুলিশের কথামত না থামিয়ে ধৃত আসামীরা জেলা পরিষদের দিকে পালাতে থাকে। একপর্যায়ে পুলিশ তাদের ধাওয়া করে তিলক চৌধুরীসহ ৩ জনকে গ্রেপ্তার করলেও অপর একজন গাড়ী থেকে নেমে পালিয়ে যায়।এ সময় আসামীরা পুলিশের কাছে একেক সময় একেক
কথা বললে আসামীদের সন্দেহ হলে তাদেরকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায়।তিলক চৌধুরীর বিরুদ্ধে কোতোয়ালী থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।
পুলিশের ভাষ্য মতে, তার ডানহাতে, বামদিকের বুক,বাহু, গলার বিভিন্ন অংশে পোড়া দাগ আছে।
গত ৪ সেপ্টেম্বর জিন্দাবাজারস্থ নেহার মার্কেটে স্বর্ণের দোকানে সংঘটিত ভয়াবহ ডাকাতির ঘটনার সাথে তিলক চৌধুরী জড়িত ছিল মর্মে বিভিন্ন মাধ্যম হতে তথ্য পাওয়া গেছে।পরে সে ঘটনার রাতেই আহত তিলক নগরী একটি ক্লিনিকে আত্মগোপন করে চিকিৎসাধীন ছিল।চিকিৎসা শেষে গতকাল তিলক তার আরো ৩ সহযোগীকে নিয়ে উক্ত প্রাইভেট কার যোগে দূর্গাপুজা দেখতে শহরে বের হয়।তবে পুলিশের
জিজ্ঞাসাবাদে তিলক এসব কিছু অস্বীকার করলেও কোথায় চিকিৎসাধীন ছিল ও কিভাবে আহত হয়েছে তার কোন সঠিক উত্তর দিতে পারেনি। পরে পুলিশ তিলক চৌধুরী শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকায় তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করে।বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই সৈয়দ ইমরোজ তারেক জানান, ধাওয়া করে জেলা পরিষদের সামন থেকে গতকাল ভোররাতে তাদেরকে একটি প্রাইভেটকারসহ তিলক ও তার ২সহযোগীসহ ৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আপাতত তাদেরকে ৫৪ ধারায় প্রেপ্তার দেখিয়ে গতকাল আদালতের
মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তবে অন্য আসামীদের গ্রেপ্তার ও ঘটনার প্রকৃত রহস্য উদঘাটনের জন্য আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here