zia khanআত্মহত্যা নয়, বলিউডের আলোচিত্র অভিনেত্রী জিয়া খান খুন হয়েছিলেন! এমন ইঙ্গিত দিল তার ফরেনসিক রিপোর্ট। তার আঙুলে মিলেছে মানুষের মাংস। অন্তর্বাসে পাওয়া গেছে রক্ত। চলতি বছর ৩ জুন জুহুতে নিজের ফ্ল্যাটে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার হয় জিয়ার মৃতদেহ। সেই মৃত্যু রহস্যে নতুন মোড় নিয়ে এল ফরেনসিক রিপোর্ট। কালিনা ফরেনসিক ল্যাবটরির রিপোর্ট অনুযায়ী, জিয়ার আঙুলের নিচে মানুষের মাংস ও রক্তের দাগ মিলেছে। সঙ্গে জিয়ার অন্তর্বাসেও রক্তের দাগ মিলেছে। এটা থেকে অনেকটাই পরিষ্কার আত্মহত্যা নয়, তাকে খুন করা হয়েছে।

সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা গিয়েছিল, সেদিন ঘটনার কিছুক্ষণ আগেই বাড়িতে ঢোকেন জিয়া। সেই সময় একটি ট্র্যাকস্যুট পরেছিলেন গজনি, নিশঃব্দ ইত্যাদি সিনেমায় অভিনয় করা এই অভিনেত্রী। কিন্ত দেহ উদ্ধারের সময় দেখা যায়, পরনে নাইট গাউন। জিয়ার মা রাবিয়ার প্রশ্ন ছিল, যে আত্মহত্যা করতে যাচ্ছে তার কি পোশাক পাল্টানোর দরকার পড়ে? সিলিং ফ্যান থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার হয়েছিল জিয়ারদেহ। তার মায়ের প্রশ্ন ছিল, ফ্যানের যা উচ্চতা, তাতে জিয়ার পক্ষে তা ছোঁয়া সম্ভব নয়। বাড়িতে টুল জাতীয় কোনও উঁচু জিনিস ছিল না। তাহলে কী করে ফ্যানের নাগাল পেলেন জিয়া? গোটা ঘটনায় পুলিশের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তোলে জিয়ার পরিবার। মায়ের অভিযোগ ছিল, গোটা ঘটনার নেপথ্যে রয়েছেন জিয়ার প্রেমিক সুরজ পাঞ্চালি। আদিত্য পাঞ্চালির ছেলে সুরজকে দোষি সাব্যস্ত করে জিয়া খানের সুইসাইড নোট উদ্ধার হয়েছিল। অবশ্য পরে সেই সুইসাইড নোটের সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল। সুরজ গ্রেফতার হন ১০ জুন। বর্তমানে তিনি জামিনে আছেন। – জি নিউজ

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here