৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া এতিমখানা দুর্নীতি মামলার রায়। এ উপলক্ষে ধুয়ে-মুছে পরিষ্কার করা হচ্ছে বকশীবাজারের পুরনো কারাগারের নারীসেল। সেখানের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে । নারী সেলে একটি সিলিং ফ্যান লাগানো হয়েছে, একটি খাট,একটি টেবিল বসানো হয়েছে এবং একজন মানুষ যেন থাকতে পারে সেই উপযোগী করে তোলা হচ্ছে।

বকশীবাজারের আলিয়া মাদ্রাসার আশেপাশের সকল সড়কে বাড়তি পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। কোনধরণের অরাজকতা এড়াতে সর্বক্ষণ টহল দিচ্ছে পুলিশ।

রায়কে কেন্দ্র করে যাতে বিএনপি কোন বিশৃঙ্খল অবস্থার সৃষ্টি না করে সে ব্যাপারে সদা সতর্ক দৃষ্টি রাখছে পুলিশসহ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সকল ইউনিট। এছাড়া ডিএমপি ও মহানগর পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, রায়কে ঘিরে বিএনপির নেতাকর্মীরা কি কি অপতৎপরতা চালাতে পারে তাঁর উপর নজর রাখছে গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা।

বেগম খালেদা জিয়া ৮ ফেব্রুয়ারি জেলে যাচ্ছেন, এ সম্পর্কে তিনি মোটামুটি নিশ্চিত। কিন্তু তার জেলটা কোথায় হবে সে সম্পর্কে তিনি এখনো নিশ্চিত নন। সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন এমন দুইজন বিএনপি নেতা বিএনপি চেয়ারপারসনকে আশ্বস্ত করেছে যে, গুলশানে বেগম জিয়ার বাসভবনেই সাব জেল ঘোষণা করে তাকে সেখানে রাখা হবে। কিন্তু এই ব্যাপারে সংশয়মুক্ত নন বেগম জিয়া নিজেই। তার ঘনিষ্ঠদের বলেছেন, এতো বড় বাড়ীকে কীভাবে সাব জেল করা সম্ভব?

বেগম জিয়ার ঘনিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, বেগম জিয়ারও ধারণা শেষ পর্যন্ত তাঁকে অন্যকোথাও নেবে। এটা কাশিমপুর না বকশীবাজারের পুরনো কারাগার নাকি অন্যকোন স্থান সে ব্যাপারে নিশ্চিত নন বিএনপি চেয়ারপারসন। তবে যেখানেই নেয়া হোক বেগম জিয়া তাঁর প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র গুছানো শুরু করেছেন। শামীম ইস্কান্দরের স্ত্রী ও তাঁর দুজন ব্যাক্তিগত স্টাফ বেগম জিয়ার ব্যাগ গুছানোর কাজ করছেন। বেগম জিয়ার ঘনিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, কারাগারে থাকলেও তিনি তাঁর মেকআপ বক্স সঙ্গেই নেবেন। মেকআপ বক্সের বাইরে তিনি পরিধেয় শাড়ি এবং আনুষাঙ্গিক পরিধেয় নেবেন দুই স্যুটকেস। এক স্যুটকেসে থাকবে তাঁর জুতো। ঔষধপত্র এবং বিছানার চাদর ইত্যাদি নেবেন এক স্যুটকেসে। অর্থাৎ জেল যাত্রাতেও বেগম জিয়ার সঙ্গী হবে ৫ স্যুটকেস। কারা কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, যদি বেগম জিয়া দণ্ডিত হয়ে জেলএ যান,সেক্ষেত্রে তিনি ডিভিশন প্রাপ্ত কয়েদীর মর্যাদা পাবেন। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এবং প্রাক্তন সংসদ সদস্য হিসেবে কারা বিধি অনুযায়ী তিনি এই ভি আই পি মর্যাদা পাবেন। এতে তাঁকে দেখভাল করার জন্য দুইজন ফালতু (দীর্ঘদিন দণ্ডিত কয়েদী) দেয়া হবে।

শেয়ার করুন
  • 489
    Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here