জনতার নিউজঃ অনলাইন ডেস্ক

 

ব্যাপারটা অনুমিতই ছিলো। জর্জিয়ো চিয়েলিনিকে কামড়ে দেয়ার ঘটনায় শেষ পর্যন্ত বড় শাস্তিই পেতে হলো লুইস সুয়ারেজকে। গতকাল ফিফার ডিসিপ্লিরারি কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আগামী নয় ম্যাচ আন্তর্জাতিক ফুটবল ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে এই উরুগুয়ে স্ট্রাইকারকে। পাশাপাশি আগামী চার মাস ফুটবল সম্পর্কিত যে কোন বিষয়ে অংশ নেয়ার ব্যাপারে বিরত থাকতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে উরুগুয়ের জয়ের এই নায়ককে। কলম্বিয়ার বিরুদ্ধে আগামীকাল নক আউট রাউন্ডের ম্যাচ দিয়েই শুরু হচ্ছে শাস্তির মেয়াদ।

ডিসিপ্লিনারি কমিটি তাদের রায়ে জানায়,’আমরা জানাচ্ছি যে, লুইস সুয়ারেজকে নয় ম্যাচ নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। যেটি শুরু হবে কলম্বিয়ার বিরুদ্ধে ২৮ জুনের বিশ্বকাপ সূচীর ম্যাচ দিয়েই। উরুগুয়ের আন্তর্জাতিক সূচী অনুযায়ী নিষেধাজ্ঞার বাকি ম্যাচগুলোর হিসাব কার্যকর হবে।’

গত ২৪ জুন ইতালির বিরুদ্ধে নক আউট রাউন্ডে ওঠার মহাগুরুত্বপূর্ণ লড়াইয়ে, চিয়েলিনির কাঁধে কামড়ে দিয়ে নতুন করে সমালোচিত হন সুয়ারেজ। বিষয়টি রেফারিদের চোখ এড়িয়ে গেলে তাত্ক্ষণিক কোন শাস্তি পেতে হয়নি সুয়ারেজকে। তবে ম্যাচের পরেই ফিফা একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে এবং কমিটি পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখতে প্রমাণ সংগ্রহ করতে শুরু করে। তবে কমিটির হাতে সুয়ারেজকে নিষিদ্ধ করার মতো যথেষ্ট প্রমাণ নেই দাবি করে উরুগুয়ে ফুটবল ফেডারেশনের প্রধান ভ্যালদেজ বলেন, ‘আমাদের বিশ্বাস সুয়ারেজের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে যে পরিমাণ প্রমাণ প্রয়োজন, সেটা তাদের হাতে নেই। ভিডিও ফুটেজে -এর পরিষ্কার প্রমাণ থাকতে হবে এবং ফিফা আমাদের যে ফুটেজটি সরবরাহ করেছে তাতে এটা (কামড়ের বিষয়টি) মোটেই পরিষ্কার নয়।’

বিভিন্ন কোণ থেকে ঐ ঘটনার বেশ কয়েকটি ভিডিও বিশ্লেষণ করা হলেও কেবল একটি বাদে আর কোন ফুটেজেই সুয়ারেজের কামড়ে দেয়ার স্পষ্ট প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তবে, চিয়েলিনির কাঁধে কামড়ের দাগের চি?হ্ন ধরা পড়েছে ফটোগ্রাফারদের ক্যামেরায়।

ধারণা করা হচ্ছে সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে মাঠে সুয়ারেজের অতীত ‘কীর্তি’গুলোও আমলে নেয় কমিটি। ইতোমধ্যে বেশ কয়েকবার কামড় এবং বর্ণবিদ্বেষীয় গালির কারণে ক্লাবপর্যায়ে কয়েকবার নিষিদ্ধ হওয়া সুয়ারেজকে শেষ পর্যন্ত বড় শাস্তিই পেতে হলো।

এ সিদ্ধান্তের আগে ব্রিটিশ গণমাধ্যমে উরুগুয়ের এই স্ট্রাইকারের হীন কর্মকান্ডের তীব্র সমালোচনা করা হয়। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ক্লাব লিভারপুলের ওই ফুটবল তারকাকে ‘জানোয়ার’ বলে উল্লে¬খ করেছে ব্রিটিশ টেবলয়েড দি সান। ডেইলি মেইল ফিফাকে বলেছে ‘কামড়ে বেড়ানো সুয়ারজকে সমাজচ্যুত করতে’।

সুয়ারেজ এর আগে একই রকমভাবে কামড়ে দেয়ার অভিযোগে দুই দফা নিষেধাজ্ঞার শাস্তি ভোগ করেছেন। দি ডেইলি টেলিগ্রাফের প্রধান প্রতিবেদক পল হাওয়ার্ড লিখেছেন, ‘লুইজ সুয়ারেজ দুইবার এই কামড় দেয়ার ঘটনা ঘটিয়েছে। কিন্তু তার সংশোধনের জন্য সেটি যথেষ্ঠ ছিলনা।’ অন্তত ছয়মাসের জন্য ফুটবল ও এ সংক্রান্ত সব কার্যকলাপ থেকে তাকে নিষিদ্ধ করার পরামর্শ দেন তিনি।

তিনি আরো লিখেন, ‘ফিফার বুঝতে হবে শুধুমাত্র আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে নয়, তাকে (সব ধরনের ফুটবল থেকে) লাথি মেরে বিদায় করার চেয়ে খেলার মধ্যে রাখাটা ফুটবলের জন্য বেশী ক্ষতিকর হবে।’ ক্রীড়া বিষয়ক কলামিস্ট ম্যাথু সায়েড লিখেছেন, তার বিরুদ্ধে এমন দীর্ঘমেয়াদি নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা দরকার যাতে সবাই এই বার্তাটি পেয়ে যায় যে, মেধাবী হলেও কেউ বিচারের উর্ধ্বে থাকতে পারে না। দি সান তার সংবাদের শিরোনাম করেছে ‘নোংরা ধেড়ে ইঁদুর’।

এদিকে লিভারপুলের ফুটবল তারকা সুয়ারেজের পৃষ্ঠপোষকতা দানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোও তাকে আর পৃষ্ঠপোষকতা না দেয়ার ইঙ্গিত দিয়েছে।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here