নিজস্ব কাপড়ই পরছেন কারাবন্দী বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। এমনটা নিশ্চিত করেছেন দায়িত্বপালনকারী একজন নারী কারারক্ষী। ওই কারারক্ষীসহ ৬জন নারী কারারক্ষী তিন শিফটে দায়িত্ব পালন করছেন। তাদের তদারকিতে আছেন একজন নারী ডেপুটি জেলার। দায়িত্ব পালন করছেন সার্বক্ষণিক একজন নারী ফার্মাসিস্ট। যাকে বৃহস্পতিবারই  আনা হয়েছে কাশিমপুর মহিলা কারাগার থেকে। অপর দিকে কারা হাসপাতালের একজন চিকিৎসক সার্বক্ষণিক ভাবে দায়িত্ব পালন করছেন। ওই চিকিৎসক শনিবার খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেছেন।
 
কারা সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার কারাগারে প্রবেশের সময় খালেদা জিয়ার সঙ্গে ব্যবহার্য জিনিস পত্রের ছোট বড় মিলিয়ে সাতটি ব্যাগ ছিল। আর ওই রাতে আইনজীবীরা দেখা করার সময় ৬টি শাড়িসহ  আরও কিছু ব্যবহার্য জিনিস পত্র পৌঁছে দেন।
 
সূত্র আরও জানায়, বৃহস্পতিবার কারাগারে নেয়ার পর খালেদা জিয়াকে প্রশাসনিক ভবনে বিশাল একটি কক্ষে বন্দী রাখা হয়েছিল। সেখানে রয়েছে এসি ও টিভির সংযোগ। এছাড়া স্বাস্থ্যসম্মত প্রসাধন কক্ষ ও আরামদায়ক বিছানার ব্যবস্থা করা হয়েছে।
 
কিন্তু শনিবার সকালেই খালেদা জিয়ারকে সেখান থেকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে সাবেক মহিলা ওয়ার্ডের পাশে দ্বিতল ভবনের দোতলায়। এ ভবনের নীচ তলায় আগে ছিল ডে কেয়ার সেন্টার। উপরের অংশে বন্দী নারীদের বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হতো। সুত্র জানায়, নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কারাগারের এ ভবনটি তৈরি হয়েছিল দু’দশক আগে।
 
সুত্র জানায়, খালেদা জিয়ার পছন্দ অনুযায়ী সকালের নাস্তা, দুপুর ও রাতের খাবার রাজধানীর দামি হোটেল থেকেই সরবরাহ করা হচ্ছে।
শেয়ার করুন
  • 7
    Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here