আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ৭ মার্চ রাজধানীর রাস্তায় নারী নিগ্রহের ঘটনা যেহেতু সমাবেশ স্থলে ঘটেনি, তাই এর দায় আওয়ামী লীগের নয়। তবে সরকারের দায় রয়েছে। বিষয়টি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী গুরুত্ব সহকারে খতিয়ে দেখছেন। জড়িত কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। 
 
বৃহস্পতিবার বিকালে ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে আওয়ামী লীগের দফতর বিষয়ক উপ-কমিটির  বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি আরো বলেন, ‘জনসভার বাইরে ঢাকার রাস্তায় কোথায় কি হয়েছে এটা আমাদের দলের বিষয় নয়। এই সরকারের আমলে এ ধরনের ঘটনায় কেউ ছাড় পায়নি এবং বুধবার যদি ঘটে থাকে কেউ ছাড় পাবে না।’ 
 
ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে আওয়ামী লীগের জনসভায় লাখ লাখ জনতার স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতিতে যেন ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চের মুক্তিযুদ্ধের অবিনাশী চেতনা আবার সোহওয়ার্দী উদ্যানে ফিরে আসে। জনসভা পরিণত হয় জনসমুদ্রে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাম্প্রদায়িক অপশক্তি যাতে আর কখনো ক্ষমতায় আসতে না পারে বলায় বিএনপির নেতাদের অন্তর্জ্বালার কারণ জানতে চেয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে দেয়া ভাষণে কোন রাজনৈতিক দলকে আক্রমণ করে কথা বলেননি। আগামীতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী কোন সাম্প্রদায়িক শক্তি যাতে ক্ষমতায় আসতে না পারে জনগণের প্রতি তিনি সে আহবান জানিয়েছেন। এতে কারো কোন অন্তর্জ্বালার কারণ নেই। কিন্তু বিএনপির নেতারা এতে কেন কষ্ট পেলেন তা আমরা জানতে চাই। 
 
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাদের বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচন যেহেতু সামনে সেহেতু তিনি একটি দলের প্রধান হিসেবে জনগণের কাছে ভোট চাইতে পারেন। তার ভোট চাওয়ার সে অধিকার রয়েছে। বঙ্গবন্ধু ৭ মার্চের ভাষণে রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক মুক্তির কথা ঘোষণা করেছিলেন। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আমরা রাজনৈতিক স্বাধীনতা পেয়েছি। কিন্তু অর্থনৈতিক মুক্তির সংগ্রাম সফল হওয়ার আগেই স্বাধীনতা বিরোধী ঘাতকচক্র বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করেছিল।
 
ওবায়দুল কাদের বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের অর্থনৈতিক মুক্তির সংগ্রাম অনেক দূর এগিয়ে গেছে। বুধবার শেখ হাসিনা তার ভাষণে পরিপূর্ণ অর্থনৈতিক মুক্তির রূপরেখা ঘোষণা করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ রূপরেখার প্রতি দেশের মানুষের আস্থা রয়েছে কিনা তা তিনি জনগণের সঙ্গে সে বিষয়ে কনটাক্ট করেছেন।

সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির জ্যেষ্ঠ নেতারা তাঁদের দলীয় প্রধানের সঙ্গে কথা বলে হাসতে হাসতে জেলগেট দিয়ে বেরিয়ে গেলেন, তাঁদের কেউ গ্রেপ্তার হয়েছেন—এটা জানা নেই। তিনি বলেন, বিএনপি নিজেদের সঙ্গে হাতাহাতি, মারামারিতে জড়িয়ে পড়ে আর দোষ হয় সরকারের। সবকিছুতে ‘নন্দ ঘোষ’ সরকারের দায় খুঁজে পায় বিএনপি।

বৃহস্পতিবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেন, ‘আমাদের যাঁরা নেতৃস্থানীয়, যাঁরা দল পরিচালনা করেন, তাঁদের বেছে বেছে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে।’ বিএনপির মহাসচিবের বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় ওবায়দুল কাদের এ মন্তব্য করেন।

 
এ সময় আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়াসহ উপ-পরিষদের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here