সামনে একাত্তর সালের চেয়েও ভয়াবহ সময় আসছে বলে মন্তব্য করেছেন আইন প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম। এ জন্য সবাইকে তিনি সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন। আজ শনিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে রুর‌্যাল জার্নালিষ্ট ফাউন্ডেশন আয়োজিত সংসদ বর্জন-জাতীয় উন্নয়নের অন্তরায় শীর্ষক নাগরিক সংলাপে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান। তিনি বলেন, একাত্তরের চেয়ে কঠিন অবস্থা সামনে অপেক্ষা করছে। আমরা যদি সজাগ না থাকি তবে বিএনপি দেশকে জঙ্গি রাষ্ট্র বানাবে। ২৫ অক্টোবরের পর খালেদা জিয়ার কথায় দেশ চলবে বিরোধীদলীয় নেতাদের এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে কামরুল বলেন, সংবিধানে স্পষ্ট বলা আছে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রীর কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করবে। নির্বাচনকালীন সময়ে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাই দেশ পরিচালনা করবে। এর বাত্যয় ঘটবে না। বিরোধী দলের বন্ধুরা সংবিধানের ভুল ব্যাখ্যা দিচ্ছেন।

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের যৌক্তিকতা এখন আর নেই উল্লেখ করে আইন প্রতিমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ ভোট ডাকাতির রাজনীতি করে না। ভোট ডাকাতির অভ্যাস আপনাদের। শেখ হাসিনার নের্তৃত্বে অন্তবর্তী সরকারের অধীনে সব দলের অংশগ্রহণে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বিএনপি কোনো কারণ ছাড়াই সংসদ বর্জন করছে এমন দাবি করে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ১৯৯৬ সালের আগে সংসদ বর্জন করেছিলাম, পদত্যাগ করেছিলাম। আমরা যখন সংসদ বর্জন করেছিলাম তা ছিল যৌক্তিক। আওয়ামী লীগ বিরোধী দলে গেলেও অযৌক্তিকভাবে সংসদ বর্জন করবে না।

তিনি আরও বলেন, পৃথিবীর কোন দেশে সংসদ বর্জনের নিয়ম চালু নেই। যারা সংসদ বর্জন করছে তারা জনগণের সাথে প্রতারণা করছে। তাই আগামীতে যারা সংসদ বর্জন করবে তাদের বিষয়ে সবাইকে সজাগ থাকাতে হবে। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার স্বচ্ছ ও আন্তর্জাতিক মানের হচ্ছে দাবি করে আাওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, কোন প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে এ বিচার করা হচ্ছে না। যাদের বিচার করা হচ্ছে তারা সবাই শীর্ষ যুদ্ধাপরাধী। এমন মাপের যুদ্ধাপরাধী আওয়ামী লীগে নেই। থাকলে অবশ্যই তাদের আগামীকালই গ্রেপ্তার করে বিচারের আওতায় আনা হবে।kamrul

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here