Tiger

log5
রুবেল হ্যাটট্রিকসহ নিয়েছেন পাঁচ উইকেট। আর তার এই বলিং নৈপূণ্যে প্রথম ওয়ানডেতে জয় পায় টাইগাররা ৪৩ রানে। বৃষ্টির কারণে খেলা বন্ধ থাকার পর পুনরায় খেলা যখন শুরু হয়—বেশ ভালোই খেলছিল অতিথিরা। দর্শকরা যখন ডুবছিলেন হতাশায়। প্রার্থনা করছিলেন উইকেটের। তখনই সেই প্রার্থনা যেন সত্যে পরিণত হয়ে যায়। রুবেল হেসেন নেন একেএকে তিন উইকেট। হ্যাটট্রিকেই শান্ত থাকেননি রুবেল। তার বিধ্বংসী বলিংয়ে গুঁড়িয়ে যায় অতিথিদের স্বপ্ন। রুবেল আবারো আঘাত হানেন নিউজিল্যান্ডের শিবিরে। তিনি নেন পাঁচ উইকেট। কোরি অ্যান্ডারসন, ব্রেন্ডন ম্যাককালাম ও জেমস নিশামকে ফিরিয়ে হ্যাটট্রিক করেন এই পেসার।

বৃষ্টি ভেজা প্রথম ওয়ানডেতে ডাকওয়ার্থ/লুইস পদ্ধতিতে নিউ জিল্যান্ডের লক্ষ্য ৩৩ ওভারে ২০৬ রান। এই ম্যাচে জেতার ফলে তিন ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল বাংলাদেশ।

২০ ওভার পর খেলা বন্ধ হওয়ার সময় নিউ জিল্যান্ডের স্কোর ছিল ৮২/৩। শেষ ১৩ ওভারে আরো ১২৪ রান করতে হবে অতিথিদের। খেলতে নেমে প্রথমেই হারান রদার ফোর্ডকে। সোহাগ গাজী তাকে বোল্ড করেন। তখন অতিথিদের রান মাত্র ৯। দলীয় ৪৩ রানে ডেভসিসকে বোল্ড করেন মাহমুদুল্লাহ রুবেল ফেরান রস টেলরকে। দলীয় রান তখন ৬০। আর আর খেলা হয় ১৬ দশমিক ৩।

এর আগে টাইগাররা ৪৯ ওভার ৫ বল খেলে সব উইকেট হারিয়ে সংগ্রহ করে ২৬৫ রান। দলের পক্ষে অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ৯০ ও নাঈম ইসলাম ৮৪ রান সংগ্রহ করেছেন। নেসহাম ৪টি, সাউদি ৩টি ও নাথান ম্যাককুলাম পেয়েছেন ১টি উইকেট।

আজ মঙ্গলবার ঢাকার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে প্রথম একদিনের ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম। কয়েকদিনের বৃষ্টি ভেজা মাঠে তার এই সিদ্ধান্ত যথেষ্ট যৌক্তিক বলেই মনে করেন ক্রিকেট বিশ্লেষকরা।

খেলতে নেমে শুরুতেই তিন উইকেট হারিয়ে বেশ চাপে পড়ে যায় স্বাগতিকরা। দলীয় শূন্য রানে রানআউট হয়ে সাজঘরের পথ ধরেন টেস্ট সিরিজের অন্যতম সফল ব্যাটসম্যান মুমিনুল হক। দলীয় ১৩ রানে ও ব্যক্তিগত ৫ রানে সাউদির বলে এলবিডব্লিউ হয়ে যান তামিম ইকবাল। দলীয় ১৭ রানের মাথায় একই পথে হাটেন এনামুল হক।

কিন্তু এখানেই তো ক্রিকেটের নাটকীয়তা। হাল ধরলেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। নাঈম ইসলামকে সঙ্গে করে গড়ে তুললেন ১৫৪ রানের পার্টনারশিপ। দলীয় রান তখন ১৭৯। আবার শুরু হলো পতনের পালা। ব্যক্তিগত ৯০ রানে নেসহামের বলে ক্যাচ দিয়ে ফিরে গেলেন ক্যাপ্টেন। ১ রান যোগ করে তার পথেই হাটলেন নাসির। পরে নাঈম লড়াই চালিয়ে গেলেও স্কোর পাহাড় ছুতে পারেনি।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here