image_14015.index

ভেজাল ও নিম্নমানের ওষুধ উৎপাদন ও বাজারজাতকরণের দায়ে অভিযুক্ত ৬২টি ওষুধ কম্পানির মধ্যে ৫৯টিকে ‘জীবনের জন্য হুমকিস্বরূপ’ উল্লেখ করে এসব প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অতিদ্রুত শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার তাগিদ দিয়েছে সংসদীয় কমিটি। পাশাপাশি এসব প্রতিষ্ঠান যাতে কোনোভাবেই ওষুধ উৎপাদনে যেতে না পারে ওষুধ প্রশাসনকে সেদিকে নজরদারি বাড়ানোর পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া বাকি তিনটি প্রতিষ্ঠানকে পেনিসিলিন, সেফালোসেপারিন, অন্যান্য অ্যান্টিবায়োটিক, অ্যাস্টেরয়েড ছাড়া অন্য ওষুধ উৎপাদনের অনুমতি দেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়। কমিটির সভাপতি শেখ ফজলুল করিম সেলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে কমিটির সদস্য মজিবুর রহমান ফকির, মোহাম্মদ আমানউল্লাহ, নাজমুল হাসান ও মো. মুরাদ হাসান এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

কমিটি সূত্র জানায়, বৈঠকে ভেজাল ওষুধ কম্পানিগুলোর লাইসেন্স বাতিলের বিষয়ে সংসদীয় সাব-কমিটির তদন্ত প্রতিবেদন নিয়ে আলোচনা হয়। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ভেজালের সঙ্গে জড়িত ৬২টি কম্পানির মধ্যে তিনটিকে পেনিসিলিন, সেফালোসেপারিন, অন্যান্য অ্যান্টিবায়োটিক, অ্যাস্টেরয়েডের মতো ওষুধ তৈরি করতে পারবে না, এমন শর্তে ওষুধ উৎপাদন ও বাজারজাতকরণের অনুমতি দেওয়া যেতে পারে। তবে বাকি ৫৯ কম্পানির ওষুধের মান জীবনের জন্য হুমকি। এর মধ্যে ১৫টি কম্পানি নামসর্বস্ব। এসব কম্পানির সঙ্গে কোনো ধরনের আপস করা যাবে না ।

প্রতিবেদনে বলা হয়, এর আগে এসব কম্পানিকে ওষুধ তৈরিতে বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছিল। এর পরও তাদের উৎপাদন মানের কোনো উন্নতি হয়নি। তাই এসব কম্পানির ওষুধ উৎপাদন ও বাজারজাতকরণের ওপর কঠোর নজরদারি রাখতে হবে।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here