জনতার নিউজ

জিপিএ-৫ পেয়েও মান-উন্নয়ন দিতে চান শিক্ষার্থী, বোর্ড কর্তৃপক্ষের না

হাইকোর্টের নির্দেশ থাকার পরও এক শিক্ষার্থীকে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়ে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী সারোয়ার জাহান মঙ্গলবার সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেছেন।

শিক্ষার্থী জানান, তিনি ২০১৬ সালে এইচএসসিতে জিপিএ-৫ পান। কিন্তু প্রয়োজনীয় নম্বর না থাকায় বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়সহ অন্যান্য প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারেননি। এ জন্য ২০১৭ সালে তিনি মান-উন্নয়ন পরীক্ষা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

সারোয়ার আরো জানান, মান-উন্নয়ন পরীক্ষা দেয়ার জন্য তিনি শিক্ষাবোর্ডে যোগাযোগ করেন। এসময় শিক্ষাবোর্ড কর্তৃপক্ষ জানায়, “যেহেতু ‘এ প্লাস’ পেয়েছেন সেহেতু তিনি আর মান-উন্নয়ন পরীক্ষা দিতে পারবেন না।” বোর্ডের বিরুদ্ধে সারোয়ার চলতি বছরের ২৩ জানুয়ারি হাইকোর্টে সংবিধানের ১০২ অনুচ্ছেদ মোতাবেক একটি রিট পিটিশন দায়ের করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৪ জানুয়ারি শিক্ষাবোর্ডের পূর্বের নীতিমালা স্থগিত করে দিয়ে তাকে মান-উন্নয়ন পরীক্ষায় অংশ নেয়ার জন্য হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ আদেশ প্রদান করেন।

সারোয়ারের অভিযোগ, তিনি রিটের আদেশের কপি নিয়ে শিক্ষাবোর্ডে গেলেও কর্তৃপক্ষ তাকে পরীক্ষার সুযোগ না দিতে টালবাহানা করছেন। এদিকে তার পরীক্ষার সময়ও এগিয়ে আসছে। আগামী ২ এপ্রিল উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। কিন্তু শিক্ষাবোর্ড কর্তৃপক্ষ এখনো তাকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণের অনুমতি না দেয়ায় তিনি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছেন।

এ ব্যাপারে রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘এটি একটি অভিনব ঘটনা। এর আগে দেশে এমন ঘটনা ঘটেনি। এ ব্যাপারে রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড একক সিদ্ধান্ত নিতে পারবে না। এ জন্য আন্তঃবোর্ড সভায় বিষয়টি নিয়ে আলোচনার প্রয়োজন রয়েছে। ফলে কিছুটা সময় লাগবে।’ এছাড়া রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড কর্তৃপক্ষ হাইকোর্টের ওই আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করারও প্রস্তুতি নিয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here