জনতার নিউজ

গাংনীর গৃহবধূর কাছে ধরা দিল ‘জিনের বাদশাহ’

স্বর্ণ সদৃশ পুতুলসহ কথিত এক জিনের বাদশাকে আটক করেছে পুলিশ। আটক ফজলু সরকার গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কমলনারায়নপুর গ্রামের বাসিন্দা। তিনি দীর্ঘদিন ধরে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা শহরে বসবাস করে জিনের বাদশাহ সেজে এলাকার লোকজনের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছিলেন।

বুধবার বিকালে মেহেরপুরের গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে এক গৃহবধূর সহায়তায় কথিত এই জিনের বাদশাহকে আটক করে পুলিশে দেয় স্থানীয় জনতা। গৃহবধূ লিপি খাতুন উপজেলার রুয়েকোন্দি গ্রামের শহিদুল ইসলামের স্ত্রী।

তিনি জানান, বেশ কিছুদিন আগে গভীর রাতে তার মোবাইল ফোনে কল আসে। রিসিভ করার পর ফজলু নিজেকে জিনের বাদশাহ পরিচয় দিয়ে নানা ধরনের হাদিস কোরআনের কথা শুনাতে থাকে। তারপর একদিন মাদরাসা ও মাজারের জন্য মোমবাতি, আগরবাতি ও কোরআন শরীফ দাবি করেন। কথিত এই জিনের বাদশার দাবি অনুযায়ী তাকে এসব কেনার জন্য মোবাইল ফোনে বিকাশের মাধ্যমে এক হাজার ২৫০ টাকা প্রদান করা হয়। তারপর থেকে শুরু হয় প্রতারণার নতুন ফাঁদ। তিনি একটি স্বর্ণের মূর্তি প্রদানের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তার কাছ থেকে ২৫ হাজার টাকা দাবি করেন। বুধবার তাকে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসতে বললে তিনি সেখানে এসে তাকে ভুয়া স্বর্ণের মূর্তিটি এক নজর দেখিয়ে এটি বাড়িতে নিয়ে গিয়ে দেখতে বলে তার কাছ থেকে সাড়ে ১২ হাজার টাকা গ্রহণ করে। তারপর স্বর্ণ মূর্তিটি দেয়ার সময় তাকে আটক করা হয়। এবং পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন জানান, কথিত এই জিনের বাদশাহর বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগে মামলা রয়েছে। তাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here