জনতার নিউজঃ

আগের রাতে নির্বাচনী প্রচারণায় ছিলেন কুমিল্লায়। ২০০৭ সালের ২২ জানুয়ারির নির্বাচনে ধানের শীষের পক্ষে ভোট চেয়ে সেখানে থেকে ঢাকায় ফিরতে ফিরতে রাত ১টা। ঘুমোতে যেতে আরো অনেক দেরি। বেগম খালেদা জিয়া পরদিন যখন ঘুম থেকে জাগলেন, বঙ্গভবনে তখন সেনা প্রধান মইন ইউ আহমেদসহ অন্যরা। সন্ধ্যা নাগাদ রাষ্ট্রপতি ড. ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদ একপক্ষীয় নির্বাচন বাতিল করে দেশে জরুরি অবস্থা জারি এবং তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রধানের পদ থেকে সরে দাঁড়াতে রাজি হন। গভীর রাতে জাতির উদ্দেশে ভাষণে তিনি তার সিদ্ধান্তের কথা জানান। পরে ড. ফখরুদ্দীন আহমদের নেতৃত্বে তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠিত হয়। এর আগের ইতিহাস আমরা জানি। নিজেদের পছন্দের ব্যক্তিকে তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রধান করতে বিচারপতিদের অবসরের বয়সসীমা বাড়িয়েছিল খালেদা জিয়ার সরকার। আওয়ামী লীগ তা মেনে না নেওয়াতে দেশে এক রক্তক্ষয়ী অবস্থার সৃষ্টি হয়। শেষ পর্যন্ত রাষ্ট্রপতি ইয়াজউদ্দিনের নেতৃত্বেই গঠিত হয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার। কিন্তু, আওয়ামী লীগসহ অন্য দলগুলো অভিযোগ করতে থাকে, বিএনপিকে আবার সরকারে আনার ব্যবস্থা করছেন ইয়াজউদ্দিন। এ নিয়ে আবারও রক্তক্ষয়ী অবস্থার দিকে এগিয়ে যেতে থাকে বাংলাদেশ। আন্তর্জাতিক শক্তিগুলোর চাপে সেনা বাহিনী তখন দৃশ্যপটে আবির্ভূত হয়, বাংলাদেশ দেখে ওয়ান ইলেভেন। ওই মুহূর্তে ‘গৃহযুদ্ধের মতো অবস্থা’ এড়ানো গেছে বলে জনগণ আপাততঃ স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলে। তবে, এটাও ঠিক যে সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার রাজনীতি থেকে শেখ হাসিনা এবং খালেদা জিয়াকে ‘মাইনাস’ করার চেষ্টা করে। জনচাপে সেটা সফল না হওয়ায় শেষ পর্যন্ত নির্বাচন দিতে বাধ্য হয়। সেই নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসে এবং পরে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির ‘আলোচিত-সমালোচিত’ নির্বাচন করে ৯ বছর ধরে ক্ষমতায় আওয়ামী লীগ। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করেন, ২০০৬ সালে বিএনপি যদি ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য লোভ না করতো অার প্রকৃতই একটি ত্ত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হতো, তাহলে বাংলাদেশের ইতিহাস অন্যরকমও হতে পারতো। মূলতঃ এক/এগারোর মাধ্যমে জাতীয়, আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বাংলাদেশকে নিয়ে অনেক পরিবর্তন সাধিত হয়েছে। বিএনপির চোখ দিয়ে দেখলে, এতে সবচেয়ে ক্ষতির শিকার তারা। তারা যে শুধু ১১ বছর ধরে ক্ষমতার বাইরে এমন নয়, তাদের ভবিষ্যৎ নেতাও দেশের বাইরে। তাই অনেকে মনে করেন, ২০০৭ সালের ২২ জানুয়ারির সাজানো নির্বাচনে ক্ষমতায় যাওয়ার যে লোভ বিএনপি করেছিল তার মাশুল তারা দিচ্ছে বছরের পর বছর। ওয়ান ইলেভেনে ঘুম ভেঙ্গে খালেদা জিয়া যেভাবে তার সাজানো সবকিছুকে উল্টেপাল্টে যেতে দেখেছিলেন, এতো বছর পরও তার কোনকিছুই তার মতো করে ঠিক হয়নি।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here