জনতার নিউজঃ

গরমে ত্বকের প্রয়োজনে তরমুজের যতগুন

আপনি জানেন কিনা, গরমের প্রিয় ফল তরমুজে শুধু তৃষ্ণা মিটে না, ত্বকের যত্নেও তরমুজ বেশ উপকারী। চিকিৎসকরা বলেন, তরমুজে ৯০ শতাংশের বেশি পানি থাকে, যা মূলত শরীর ও ত্বকের পানিশূন্যতা কমিয়ে আনে।

এছাড়া তরমুজের অ্যামিনো অ্যাসিড ত্বকের কোলাজেন নামক উপাদান বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। একই সঙ্গে এতে রয়েছে অ্যান্টি–অক্সিডেন্ট, ভিটামিন এ, বি এবং সি।ত্বকের জন্য তরমুজের গুণাবলী কী কী সেগুলো জেনে নিন।

ত্বক সতেজ করে

ত্বকের যেকোনো সমস্যায় তরমুজ ব্যবহার করা যেতে পারে। গরমে ব্ল্যাকহেডস, র্যাশ, পোড়া ভাব কিংবা ব্রণের সমস্যা দেখা দেয়। এসব সমস্যার সমাধানে তরমুজের মাস্ক, তরমুজের রসের আইস কিউব বেশ উপকারী। তরমুজ আসলে এমন একটি ফল, যার প্রতিটি অংশ আপনি ত্বকের যত্নে ব্যবহার করতে পারবেন।

ময়েশ্চারাইজার রাখতে তরমুজ

ত্বককে উজ্জ্বল ও ময়েশ্চারাইজ রাখতে তরমুজ বেশ উপকারি। ভিটামিন সি থাকার কারণে এটা স্ক্রাব হিসেবে দারুণ। তাই এক টুকরো তরমুজ কেটে নিয়ে ত্বকে আলতোভাবে ঘষে নিতে পারেন। তারপর ঠান্ডা পানি কিংবা আইস কিউব দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। চাইলে তরমুজের রসের সঙ্গে চালের গুঁড়া মিশিয়ে নিয়ে স্ক্রাবিং করতে পারেন। ১০ মিনিট রেখে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। তরমুজের বীজ শুকিয়ে গুঁড়া করেও স্ক্রাব হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে।

ক্লিনজার হিসেবে

বাইরে রয়েছে প্রচন্ড ধুলাবালি। বাসায় ফিরে দেখা যায় র্যাশ, ব্রণের সমস্যা। তৈলাক্ত ত্বকে র্যাশ আর ব্রণের সমস্যা আরও বেশি দেখা দেয়। সে ক্ষেত্রেও তরমুজ ব্যবহার করতে পারেন। তরমুজ এবং লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে ক্লিনজার হিসেবেও ব্যবহার করা যায়। সপ্তাহে অন্তত তিন দিন মিশ্রণটি ত্বকে ম্যাসাজ করুন। ১০ মিনিট পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

মাস্ক হিসেবে

তরমুজের সঙ্গে বেসন, দুই চিমটি হলুদ, টক দই এবং পরিমিত লেবুর রস মিশিয়ে মাস্ক তৈরি করতে পারেন। শুকিয়ে না যাওয়া পর্যন্ত ত্বকে লাগিয়ে রাখুন। এই মাস্ক টোনার হিসেবে উপকারী। ফলে ত্বকে সহজেই বলিরেখা পড়বে না। এজন্য, এই মাস্ক ১ সপ্তাহ পর্যন্ত ফ্রিজে রাখতে পারেন। এরবেশি না রাখা ভালো। অথবা শুধু ডিমের কুসুম দিয়েও তরমুজের মাস্ক তৈরি করতে পারেন। এটি রোদে পোড়া দাগ কমিয়ে আনে।

ব্রণের সমস্যায়

পরিষ্কার করে নেওয়া তরমুজের বীজগুলো পানিতে সেদ্ধ করে নিন। বীজগুলো নরম হয়ে গেলে পেস্ট করে ব্রণের ওপর মালিশ করুন। তিন থেকে পাঁচ মিনিট পর শুকিয়ে গেলে তার ওপর ডিমের সাদা অংশ ব্রাশ দিয়ে আলতো করে লাগিয়ে নিন। ১০ মিনিট পর পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। তৈলাক্ত ত্বকের জন্য এটি খুবই উপকারী।

খোসা না ফেলে

তরমুজের খোসার সবুজ অংশ পাতলা করে কেটে নিয়ে অল্প পানিতে সেদ্ধ করে নিন। পানি ঘন হয়ে গেলে সেটি ঠান্ডা করে আপনি টোনার হিসেবেও ব্যবহার করতে পারবেন। তরমুজে যেহেতু ভিটামিন এ রয়েছে, তাই এটি আপনার চোখের নিচের কালো দাগ দূর করে। ত্বকের অতিরিক্ত তৈলাক্ত ভাব দূর করে।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here