abul hasan mahmudহরতাল ও অবরোধের নামে সন্ত্রাসমূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনাকারীদের দেশের শত্রু হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। তিনি বলেন, নির্বাচনকালীন সরকার দেশের শত্রুদের এই সন্ত্রাসবাদ চেষ্টা নস্যাতে অঙ্গীকারাবদ্ধ। আজ সোমবার বিকালে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় সার্ক ও আশিয়ানভুক্ত দেশগুলোর দূতদের ব্রিফিংকালে তিনি এ কথা বলেন। কাল সন্ধ্যায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়।
উল্লেখ্য, এ বছর বিভিন্ন সময় বিদেশি কূটনীতিকদের ব্রিফিংয়ের বিষয়টি আগে থেকে সংবাদ মাধ্যমকে অবহিত করা হলেও কাল তার ব্যতিক্রম ঘটেছে। এর আগে কূটনীতিকদের উদ্দেশ্যে সর্বশেষ ব্রিফিং হয় গত অক্টোবর মাসে।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী ব্রিফিংয়ে সার্ক ও আসিয়ান দেশগুলোর দূতদের বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সর্বদলীয় নির্বাচনকালীন সরকার আগামী জানুয়ারি মাসে অবাধ, সুষ্ঠু, বিশ্বাসযোগ্য ও শান্তিপূর্ণ উপায়ে দশম জাতীয় সংসদীয় নির্বাচন অনুষ্ঠানে অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি করতে নির্বাচন কমিশনকে সর্বাত্নক সহযোগিতা দিচ্ছে।’
ব্রিফিংয়ে অন্যদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিকবিষয়ক উপদষ্টো ড. গওহর রিজভী ও পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক উপস্থিত ছিলেন।
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, ‘বিএনপি-জামায়াত সন্ত্রাসীদের হামলা থেকে রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান, সাধারণ জনগণ বিশেষ করে সংখ্যালঘু শ্রেণীর জীবন ও সম্পদ রক্ষায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী গুরুত্বপূর্ণ এই দিনগুলোতে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী নেওয়া নিরাপত্তা ব্যবস্থাগুলো সম্পর্কে সার্ক ও আসিয়ান দেশগুলোর দূতদের অবহিত করেন।’
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিরোধী জোটের হরতাল ও অবরোধকে দেশের অর্থনীতি ও যোগাযোগ ব্যবস্থাকে পঙ্গু করা, বাংলাদেশের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেওয়া, যুদ্ধাপরাধের বিচার ও আসন্ন জাতীয় নির্বাচন শান্তিপূর্ণ উপায়ে অনুষ্ঠানকে ব্যাহত করার চেষ্টা হিসেবে অভিহিত করেন। তিনি বলেন, হরতাল ও অবরোধের নামে রাষ্ট্রের এই শত্রুদেরে সন্ত্রাসবাদ নস্যাৎ করতে সরকার অঙ্গীকারাবদ্ধ।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, নির্বাচন পূর্ববর্তী এই গুরুত্বপূর্ণ সময়ে নির্বাচনকালীন সরকার বাংলাদেশে কূটনৈতিক মিশনগুলোর পাশাপাশি বাংলাদেশে অবস্থানরত বিদেশি ছাত্র ও কর্মীদের নিরাপত্তা ও সুরক্ষার সম্ভাব্য সব ধরনের উদ্যোগ নিয়েছে।
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, ঢাকার গুলশান ও বারিধারা কূটনৈতিক এলাকায় অতিরিক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়ায় সার্ক ও আসিয়ান দেশগুলোর রাষ্ট্রদূতরা নির্বাচনকালীন সরকারকে ধন্যবাদ জানান ও সন্তোষ প্রকাশ করেন। সরকারের উচ্চ পর্যায়ের নিরাপত্তা ও সুরক্ষা সহযোগিতার ফলে হরতাল-অবরোধের মধ্যেও তারা ঢাকায় নিরাপদে চলাচল করতে পারছেন বলে জানিয়েছেন।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here