কুমিল্লার ১১ টি আসনের সম্ভাব্য প্রার্থীদের নাম প্রাথমিকভাবে চুড়ান্ত হয়েছে বলে দলীয় বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে। বিগত চারটি নির্বাচনে কুমিল্লার আসনগুলোর মধ্যে নবম জাতীয় সংসদে আওয়ামী লীগ বেশি সংখ্যক আসন লাভ করে। ১১ টির মধ্যে ৯ টি পায় আওয়ামী লীগ এবং ২টি আসনে বিএনপি জয় লাভ করে।

এবার কয়েকটি আসনে চরম দলীয় কোন্দল, স্থানীয় জনগণের সাথে জনবিচ্ছিন্নতা এবং নেতাকর্মীদের নিয়ন্ত্রণে না রাখতে পারার অভিযোগ আছে। তাই দলীয় কোন্দল, তৃণমূল নেতাকর্মীদের মতামত, দলের প্রতি অবদান, জনপ্রিয়তা, গোয়েন্দা সংস্থার তথ্য এবং বিশেষ জরীপের ভিত্তিতে তালিকা প্রায় চুড়ান্ত হয়েছে বলে জানা গেছে।

প্রতিটি আসনেই একাধিক প্রার্থী থাকায় বিকল্প প্রার্থী রাখারও পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানা গেছে। চুড়ান্ত প্রার্থীদের মধ্যে কুমিল্লা-১ আসনে সুবিদ আলী ভুইয়া এমপি, কুমিল্লা-৩ আসনে ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন, কুমিল্লা-৫ আসনে দলের কেন্দ্রীয় আইন বিষয়ক সম্পাদক আবদুল মতিন খসরু এমপি, কুমিল্লা-৯ আসনে শিল্পপতি তাজুল ইসলাম এমপি, কুমিল্লা-১০ আসনে আ.হ.ম মোস্তফা কামাল (লোটাস কামাল) এবং কুমিল্লা-১১ আসনে রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক প্রমুখের মনোনয়ন প্রায় নিশ্চিত।

১৯৭৩ সালের পর ২০০৮ সালে কুমিল্লা-৬ আসনে আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহার জয় লাভ করেন। কুমিল্লার গুরুত্বপূর্ণ এ আসনটিতে মূলত দলীয় কোন্দলের কারণেই আ’লীগ বারবার পরাজিত হয়েছে। এবার আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহারের মনোনয়ন প্রায় নিশ্চিত হলেও আফজল খানও প্রার্থী হবেন বলে জানা গেছে।

কুমিল্লা-২ আসনে গত নির্বাচনে অধ্যাপক আবদুল মজিদ পরাজিত হয়। এবার শিল্পপতি মাহবুবুর রহমান নির্বাচনের জন্য সক্রিয় হলে প্রায় সকল নেতাকর্মী তার নেতৃত্বে সংগঠিত হয় ফলে অধ্যাপক মজিদ গত তিন বছর নিষ্ক্রিয় থাকায় বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। অগ্নিকাণ্ডে মাহবুবুর রহমান মৃত্যুবরণ করায় আবুল কালাম আজাদ এবং জাহাঙ্গীর আলম সরকার প্রার্থী হচ্ছেন। জাহাঙ্গীর সরকার গত নির্বাচনে কুমিল্লা-৩ আসন থেকে নির্বাচন করেছিলেন এবং সে আসন থেকেও মনোনয়ন পেতে কর্মকাণ্ড চালাচ্ছেন। তাই কুমিল্লা ২ আসনে তৃণমূল সম্পৃক্ততা ও জনপ্রিয়তা না থাকায় আবুল কালাম আজাদ মনোনয়ন পাবেন বলে জানা গেছে।

কুমিল্লা- ৪ আসনে এবিএম গোলাম মোস্তফার মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা আছে তবে সাবেক অর্থ উপমন্ত্রী এএফএম ফখরুল ইসলাম মুন্সী প্রার্থী হবেন বলে শোনা যাচ্ছে। এ আসনে আ’লীগের দলীয় কোন্দল চরম পর্যায়ে আছে।

কুমিল্লা-৭ আসনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত মনোনয়ন পাবেন বলে জানা গেছে তবে বর্তমান এমপি অধ্যাপক মো. আলী আশরাফও প্রচারণা চালাচ্ছেন।

কুমিল্লা-৮ আসনে সাবেক এমপি আবদুল হাকিমের মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি তবে বর্তমান এমপি নাছিমুল আলম চৌধুরীও প্রার্থী হবেন।

এবার আওয়ামী লীগের মনোনয়নে জনবিচ্ছিন্নতার কারণে কয়েকজন বর্তমান এমপি বা গত নির্বাচনের প্রার্থী মনোনয়ন পাবেন না। সকল আসনেই সম্ভাব্য প্রার্থীরা জোর প্রচারণা চালাচ্ছেন। অপেক্ষায় আছেন দলীয় চুড়ান্ত সিদ্ধান্তের।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here