tuni-husbandnews

সেই ‘টুনি’ আর নেই। আশির দশকের শেষ দিকে  জননন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদের টিভি নাটক ‘এইসব দিন রাত্রি’র টুনি চরিত্রটি ছিল ব্যাপক আলোচিত। কাহিনীর এক পর্যায়ে ‘টুনি’ দূরারোগ্য ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যাচ্ছে-এমন ঘটনাপ্রবাহ দর্শক মেনে নিতে পারেনি। ওই সময় শিশু টুনিকে বাঁচিয়ে রাখার দাবি জানিয়ে সংবাদপত্রে চিঠিও প্রকাশিত হয়েছে। কিন্তু ২৬ বছর পর সেই ‘টুনি’ ঠিকই বিদায় নিলো। তবে সেটি স্বাভাবিক বিদায় নয়। অস্বাভাবিকভাবে মৃত্যু হয়েছে এই ‘টুনি’ চরিত্রে অভিনয়কারী অভিনেত্রী নায়ার রহমান লোপার।

বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানীর গুলশানের একটি ফ্ল্যাট থেকে নাট্য অভিনেত্রী লোপা’র (৩৫) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। হত্যার অভিযোগে লোপার স্বামী আলী আমিনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। লোপাকে হত্যা করা হয়েছে এমন অভিযোগে তার মা রাজিয়া সুলতানা বাদি হয়ে আলী আমিনকে আসামি করে গুলশান থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় পুলিশ আলী আমিনকে ১০ দিনের রিমান্ডে আবেদন জানিয়ে আদালতে পাঠালে, আদালত রিমান্ড নামঞ্জুর করে তাকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেয়।

পারিবারিক সূত্র জানায়, ১৪ বছর আগে চট্টগ্রামের ইসমাঈলিয়া সম্প্রদায়ের আলী আমিনের সাথে লোপার বিয়ে হয়। আলী আমিনের বাবা আমিন আলী চট্টগ্রামে একটি তৈরি পোশাক কারখানার মালিক। আলী আমিন ব্যবসায়ী না হলেও ধনাঢ্য পিতার কাছ থেকে টাকা নিয়ে সংসার চালাতেন। দুই বছর আগে লোপা মেয়ের নামে ‘আজ্জারি ফ্যাশন হাউস’ নামে একটি দোকান চালু করেন। গুলশানের ওই ফ্ল্যাটটি শ্বশুর লোপার নামে লিখে দেন। আমিন আলী ছেলের চেয়ে পুত্রবধূকেই বেশি পছন্দ করতেন।

গুলশান থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার রাত ৮ টার দিকে খবর পেয়ে গুলশান-১ নম্বরের ১২৬ নম্বর সড়কের ১২ নম্বর বাড়ির সি-৩ ফ্ল্যাট থেকে লোপার লাশ উদ্ধার করা হয়। বেডরুমের খাটের ওপর সিলিং ফ্যানের সঙ্গে শাড়ি দিয়ে প্যাঁচানো অবস্থায় লাশ ঝুলে ছিল। তবে দুই পা খাটে অর্ধভাঁজ করা অবস্থায় ছিল।

পারিবারিক সূত্র জানায়, বিয়ের পর থেকে সম্প্রদায়গত কারণে লোপা ও আমিনের মধ্যে অমিল চলছিল। এ নিয়ে তাদের মধ্যে একাধিকবার দাম্পত্য কলহের সৃষ্টি হয়। বিষয়টি নিয়ে লোপার পরিবারের পক্ষ থেকে বেশ কয়েকবার মধ্যস্থতাও করা হয়। লোপার দুই মেয়ে। আজ্জারি আমিন (৯) গুলশানের সিজিএম গ্রামার স্কুলের শিক্ষার্থী, ছোট মেয়ে আন্নু আমিনের বয়স ছয়।

গতকাল শুক্রবার বাদ মাগরিব বনানী কবরস্থানে লোপার দাফন সম্পন্ন হয়েছে। লোপার এ ধরনের মৃত্যুকে তার মা রাজিয়া সুলতানা স্বাভাবিক বলে মেনে নিতে পারছেন না। তিনি অভিযোগ করেন, লোপার স্বামী তাকে পিটিয়ে ও শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে। হত্যার পর লাশ ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে।

‘এই সব দিনরাত্রি’ নাটকে লোপা ‘টুনি’ চরিত্রে অভিনয় করার সময় তার মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেন অভিনেত্রী ডলি জহুর। গতকাল তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘তার নাম লোপা হলেও তাকে সব সময় টুনি নামেই ডাকতাম। টুনিকে আমি নিজের মেয়ে বলে মনে করতাম। টুনিও তাকে সব সময় ‘মা’ সম্বোধন করে ডাকত।’ মা ও মেয়ের এ ধরনের মধুর সম্পর্কের পর শুক্রবার সকালে তিনি তার মেয়ের মৃত্যুর সংবাদ পান। তিনি বলেন, মেয়েটা কখনই তার মনের কথা বলতো না। সব সময় ছিল হাসি-খুশি। কিন্তু এ ঘটনাটা তিনি স্বাভাবিকভাবে মেনে নিতে পারছেন না।

লোপা’র সহকর্মী নাট্য অভিনেত্রী তাজিন আহমেদ বলেন, লোপাকে ‘টুনি’ নামেই সবাই ডাকত। তার সঙ্গে ফেসবুকে নিয়মিত যোগাযোগ ছিল। কিন্তু কখনই তার মনের কষ্টের কথা জানাতো না। সর্বশেষ ঈদের আগের দিনও লোপার সঙ্গে তার কথা হয়েছিল।

পুলিশের গুলশান বিভাগের উপ-কমিশনার লুত্ফুল কবীর জানান, ঘটনার পর মৃতের মোবাইল ফোন ও কিছু আলামত জব্দ করা হয়েছে। তার ব্যবহূত ফেসবুক ও ই-মেইল খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তার স্বামীর ফেসবুক ও ই-মেইলও পরীক্ষা করা হচ্ছে। ঘটনাটি আত্মহত্যা, নাকি হত্যা-এ ব্যাপারে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে নিশ্চিত হওয়া যাবে। তবে কী কারণে ঘটনাটি ঘটল তা তদন্ত করা হচ্ছে। এ জন্য মৃতের দুই পরিবারের সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গ সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সকালে লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। ময়নাতদন্তকারী চিকিত্সক জানান, মৃতের বুকে সামান্য আঘাতের চি?হ্ন রয়েছে। আত্মহত্যাজনিত কারণে তার মৃত্যু হয়েছে বলে উল্লেখ করে ওই চিকিত্সক জানান, এই আত্মহত্যার পেছনে অন্য কারণও থাকতে পারে। তাকে আত্মহত্যায় কেউ বাধ্যও করতে পারে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here