joyগতকাল আমার মা টেলিফোনে খালেদা জিয়ার সাথে প্রায় ৪০ মিনিট ধরে কথা বলেন। আলোচনা শুরু করার জন্যে খালেদা সরকারকে যে সময়সীমা দিয়েছিলেন, গতকালই ছিলো তার শেষ দিন। তারপরও তিনি আলোচনার আমন্ত্রণ প্রত্যাখ্যান করেন এবং তারা হরতাল চালিয়ে যাচ্ছেন।

আরও দুশ্চিন্তার ব্যাপার হচ্ছে, গত ২৪ ঘন্টায় মুহুর্মুহু বোমার হামলা। আইন মন্ত্রীর বাড়ি বোমায় আক্রান্ত হয়েছে, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর তুরিন আফরোজের বাড়িতে বোমা হামলা হয়েছে এবং সারা দেশে আরও অনেক বোমা ও ককটেলের হামলা হয়েছে। বিস্ফোরক ও গান পাউডার উদ্ধার করা হয়েছে। যুবলীগের এক নেতাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এগুলো রাজনৈতিক প্রতিবাদ নয় এবং কোনো বৈধ রাজনৈতিক দলের আচরণ এমন হতে পারে না। এগুলো সন্ত্রাসী আচরণ। বিএনপি-জামায়াত ক্রমশ একটি সন্ত্রাসী জোটে পরিণত হয়েছে।

আপনারা নিশ্চয়ই ভুলে যাননি, বিএনপি-জামায়াতের গত মেয়াদটি এ ধরনের সন্ত্রাসী আক্রমণে জর্জরিত ছিলো। এদের নির্বাচনে ভোট দিলে কী ঘটতে পারে, তারই একটি ছোট উদাহরণ আপনারা দেখতে পেলেন। আসুন, বিএনপি-জামায়াতের এই সন্ত্রাসকে প্রত্যাখ্যান করি এবং নির্বাচনে তাদের প্রতিহত করি।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here