আইনস্টাইনের আপেক্ষিকতা তত্ত্বের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ স্বতঃসিদ্ধ হল: “আলোর বেগের চেয়ে দ্রুতগতিতে ভ্রমণ সম্ভব নয় অর্থাৎ মহাবিশ্বে আলোর চেয়ে দ্রুতগতি সম্পন্ন কোন কণা নেই।

নিউট্রিনো নামে একটি কণা আলোর চেয়ে দ্রুতগতি সম্পন্ন বলে দাবি করে আইনস্টাইনের স্বতঃসিদ্ধকে ভুল প্রমাণের দাবি করলেন পদার্থ বিজ্ঞানে পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ল্যাবরেটরি গ্র্যান স্যাসোর বিজ্ঞানীরা।

একটি পর্বতের নীচে পরীক্ষায় তারা দেখেছেন নিউট্রিনো আলোর চেয়ে প্রতি সেকেন্ডে প্রায় ৫ হাজার ৯শ’ ৯৬ মিটার বেশি বেগে চলে। ইউরোপিয়ান অরগানাইজেশন অব নিউক্লিয়ার রিসার্চ সেন্টার সার্নের গবেষণাপত্রে প্রকাশিত হয়েছে এটি।

অসসিলেশন প্রোজেক্ট উইথ এমালশন-টি র‌্যাকিং অ্যাপারেটাস সংক্ষেপে অপেরার গবেষকরা জানান, অতিপারমাণবিক কণা নিউট্রিনো নিয়ে পরীক্ষাটি চালানো হয়েছে। সার্ন থেকে গ্র্যান স্যাসো ল্যাবের দিকে কণাগুলো নিক্ষেপ করা হয়। তাদের মধ্যবর্তী ৭৩০ কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রমের সময় রেকর্ড করা হয়। এই পথ অতিক্রম করতে ওই কণাগুলোর সময় লাগার কথা ২ দশমিক ৪ মিলি সেকেন্ড। কিন্তু তিন বছরব্যাপী ওই পরীক্ষা শুরুর পর দেখা গেলো ১৫ হাজার নিউট্রিনো কণার গ্র্যান স্যাসো ল্যাবে পৌঁছাতে সময় লেগেছে এক সেকেন্ডের ৬০ বিলিয়ন ভাগের এক ভাগ। এই হিসাব অবশ্য ১০ বিলিয়ন ভাগের একভাগের মধ্যে কম-বেশি হয়েছে।

এতে প্রমাণিত হয় নিউট্রিনোর গতি আলোক কণার চেয়ে বেশি। আলোর গতি যেখানে সেকেন্ডে ২৯ কোটি ৯৭ নব্বই লাখ ৯২ হাজার ৪শ ৫৮ মিটার সেখানে নিউট্রিনোর গতি সেকেন্ডে ২৯ কোটি ৯৭ লাখ ৯৮ হাজার ৪শ ৫৪ মিটার।

তবে এই অভিনব আবিষ্কারটির স্বীকৃতির জন্য বিশ্বের অন্য ল্যাবরেটরির পর্যালোচনার ফলাফল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here