জনতার নিউজঃ

আরো এক সাঁওতালের লাশ উদ্ধার, নিখোঁজ ৫

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামার এলাকার ধানক্ষেত থেকে সোমবার রাতে মঙ্গল মাদ্রি (৫০) নামে আরও এক সাঁওতালের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত মঙ্গল মাদ্রি দিনাজপুর জেলার ঘোড়াঘাট উপজেলার দান্দুপর গ্রামের মৃত জেঠা মাদ্রির ছেলে। এর আগে রবিবার সংঘর্ষের ঘটনায় গুলিবিদ্ধ সাঁওতাল শ্যামল হেমভ্রম (৩৫) দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে মারা যান। এনিয়ে উপজেলায় পুলিশ-সাঁওতাল সংঘর্ষে দুই জন মারা গেলেন।

উপজেলার রংপুর চিনিকলের জমিতে আখ কাটাকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারীদের সঙ্গে সাঁওতালদের ওই সংঘর্ষ হয়। এই ঘটনায় গোবিন্দগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক কল্যাণ চক্রবর্তী বাদী হয়ে ওই দিনই ৩৮ জনের নাম উল্লেখ করে সাড়ে ৩শ জনকে আসামি দেখিয়ে মামলা করেন। এই ঘটনায় গুলিবিদ্ধ তিন সাঁওতালকে মঙ্গলবার গ্রেফতার করা হয়েছে।

এদিকে সংঘর্ষের পর থেকে আরও পাঁচজনকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না বলে দাবি করছেন সাঁওতাল নেতারা। এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। উপজেলার মাদারপুর, জয়পুরপাড়া, গোয়ালপাড়া ও শিন্টাছড়ির সাঁওতালরা আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন। চিনিকল কর্তৃপক্ষ উচ্ছেদকৃত জমিতে এখন পুলিশ পাহারায় আখ চাষ করছে।

সাহেবগঞ্জ-বাগদাফার্ম ইক্ষু খামার জমি উদ্ধার সংহতি কমিটির সহ-সভাপতি ফিলিমন বাস্কে মুঠোফোনে বলেন, ওই দিন পুলিশের ছোঁড়া গুলিতে আমাদের মোট চারজন গুলিবিদ্ধ হয়। এছাড়া আরও পাঁচজনকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তাদেরকে গুম করা হতে পারে বলে আমরা আশঙ্কা করছি। তিনি আরো দাবি করেন, রবিবার উচ্ছেদ অভিযানের সময় পুলিশের উপস্থিতিতে সাঁওতালদের অস্থায়ী ঘরগুলোতে আগুন দেয়া হয়েছে।

গোবিন্দগঞ্জ থানার ওসি সুব্রত কুমার সরকার মুঠোফোনে বলেন, উদ্ধার করা মরদেহে কোন আঘাতের চিহ্ন ছিল না। তাই ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন না পাওয়া পর্যন্ত তার মৃত্যুর কারণ বলা যাচ্ছে না। তিনি আরো জানান, এ ঘটনায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিত্সাধীন গুলিবিদ্ধ দীজেন টুটু, চরণ সরেন, বিমল কিশকুকে ও গোবিন্দগঞ্জ থেকে মাঝিয়া হেমভ্রমকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এদিকে গতকাল বিকালে সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামার সংলগ্ন খামারপুর বাজারে গাইবান্ধা-৪ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ মাদারপুর ও জয়পুরপাড়া সাঁওতাল পল্লীর ৫০ পরিবারকে ১০ কেজি চাল ও ৫ শ’ করে টাকা প্রদান করেছেন।

আদিবাসী হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ : সাঁওতালদের উপর পুলিশ ও স্থানীয় সন্ত্রাসীদের হামলা ও গুলি করে মানুষ হত্যার প্রতিবাদে গতকাল গাইবান্ধা শহরের ১নং ট্রাফিক মোড়ে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সিপিবি’র জেলা সভাপতি মিহির ঘোষ, বাসদ জেলা সমন্বয়ক গোলাম রব্বানী প্রমুখ। বক্তারা শ্যামল ও মঙ্গলের হত্যকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করার জোর দাবি জানান।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here