রাজপথের সহিংসতা দমনে সিএমপির অস্ত্র ভাণ্ডারে যুক্ত হয়েছে সাউন্ড হ্যান্ড গ্রেনেডসহ বিভিন্ন প্রকার দাঙ্গাদমন সরঞ্জাম। একমাস আগে পুলিশ সদর দপ্তর থেকে অর্ধশত সাউন্ড হ্যান্ড গ্রেনেডসহ কিছু বিস্ফোরক সরঞ্জাম সিএমপিতে আনা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
সূত্র জানায়, সাউন্ড হ্যান্ড গ্রেনেড আনা হলেও চট্টগ্রাম নগর কিংবা জেলায় এসব বিস্ফোরক ব্যবহারের প্রয়োজন এখনও পড়েনি। গত ফেব্রুয়ারি মাসে ঢাকায় সভা-সমাবেশ-মিছিল পণ্ড ও ছত্রভঙ্গ করতে সাউন্ড হ্যান্ড গ্রেনেড ব্যবহার করেছিল ডিএমপি। এর আগে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশে (এসএমপিতে) এটির ব্যবহার হয়েছিল জানা গেছে।
জানা গেছে, ২০১২ সালের ডিসেম্বরে কোরিয়া ও চীন থেকে আনা হয় চার ধরনের বিস্ফোরক সরঞ্জাম। এর মধ্যে রয়েছে এক হাজার সাউন্ড হ্যান্ড গ্রেনেড ও পিপার গ্যাস স্প্রে এবং ৫ হাজার কালার স্মোক গ্যাস গ্রেনেড।
জানা গেছে, দেশীয় এজেন্টের মাধ্যমে পলিটেকনোলজি চীন, কনটেক কোরিয়া, কনডোর ব্রাজিল ও যুক্তরাষ্ট্রের নন লেথাল টেকনোলজি নামের কোম্পানি থেকে এসব সরঞ্জাম আনা হয়েছে।
পুলিশ সূত্র জানায়, সাউন্ড হ্যান্ড গ্রেনেড এক ধরনের হাতে ব্যবহার উপযোগী গ্রেনেড। তাৎক্ষণিকভাবে সংঘবদ্ধ জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে এটি ব্যবহার করা হয়ে থাকে। বিকট শব্দে এটি বিস্ফোরিত হয়ে জনতার মাঝে ভীতির সঞ্চার করবে। এটি বহন করা সহজ। একটি মাত্র পিনের মাধ্যমে ছোড়া গ্রেনেডটি ১০ সেকেন্ডের মধ্যেই বিস্ফোরিত হবে।grened

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here