riceতানভির আহমেদ মেহেরপুর প্রতিনিধিঃ জনতার নিউজ।

নির্বাচনের তফশিল প্রত্যাখ্যান করে সারা দেশের ন্যায় বিএনপি নেতৃত্তাধীন ১৮ দলের ডাকা ৪৮ ঘণ্টা অবরোধের দ্বিতীয় দিন ভোর থেকেই মেহেরপুরের বিভিন্ন স্থানে গাছের গুড়ি ফেলে সড়ক অবরোধ,ও টায়ার জালিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছে অবরোধকারীরা।

জানা গেছে,মেহেরপুর-কুষ্টিয়া সড়কের বাসবাড়িয়া বাজার থেকে পুড়াপাড়া,ছাতিয়ান থেকে খলিসাকুন্ডি,মেহেরপুর কাথুলি সড়কের পৌর কলেজের সামনে তিন রাস্তার মোড়,মেহেরপুর-চুয়াডাঙ্গা সড়কের রাজনগর থেকে বারাদি বাজার, মুজিবনগরের গরিনগর মোড়,কেদারগঞ্জ বাজার মেহেরপুর-মুজিবনগর সড়কের চকশামনগর,বন্দর মোড় এলাকায় সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে ১৮ দলীয় জোটের নেতাকর্মীরা।

মেহেরপুর চুয়াডাঙ্গা সড়কের রাজনগর ওদিন দত্ত ব্রিজের নিকট জামায়াত-বিএনপি ও ১৮ দলের নেতাকর্মীরা লাঠি নিয়ে অবস্থান নেয় সড়কে।জামায়াত-শিবিরের সন্ত্রাসী নেতাকর্মীরা ব্যানার ও লাঠি নিয়ে অবস্থান নেয় সড়কেও আগুন জ্বালিয়ে বিভিন্ন স্লোগানে বিক্ষোভ মিছিল করে।

এছাড়া মেহেরপুর-মুজিবনগর সড়কের বন্দর মোড়ে ১৮ দলীয় জোটের নেতাকর্মীরা লাঠি হাতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ মিছিল করে।মেহেরপুর-কাথুলী সড়কের কায়েম কাটামোড়ে ১৮ দলের কিছু সংখ্যাক নেতাকর্মী রাস্তায় আগুন জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে বিভিন্ন স্লোগানে বিক্ষোভ করে।এসময় তারা কয়েকটি ককটেল এর বিস্ফোরণ ঘটিয়ে পুরা এলাকায় ত্রাসের সৃস্টি করে। অপরদিগে গতকাল বুধবার সন্ধায় মেহেরপুর শহরের ফোজদারি পাড়ার বাহাদুর নামে এক চালক আলগামন নিয়ে চুয়াডাঙ্গার পথে বের হয়।এ সময় সে রাজনগর এর নিকট পৌছালে অবরধকারীদের সামনে পড়ে।অবরোধকারীদের অতর্কিত হামলায় সে আহত হয়।আহত বাহাদুর মেহেরপুর পৌরসভার আক্কাস আলীর ছেলে।
অপর দিকে,বিকল্প পথে মেহেরপুর প্রবেশ করার সময় গতকাল বুধবার বিকেলে মেহেরপুর সদর উপজেলার পিরোজপুর গ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় তিনজন আহত হয়েছে।ব্যাবসায়িক কাজে তিন ব্যাবসায়ী নসিমন করে মেহেরপুর আসার সময় অবরোধকারীদের সামনে পড়ে।পড়ে তারা বিকল্প পথে মেহেরপুর আসতে গেলে পিরোজপুর গ্রামে এসে নসমন চালক নিয়ন্ত্রন হারিয়ে ফেললে নসিমনটি উলটিয়ে তারা আহত হয়।আহতরা হলেন-ঝিনাইদহ জেলার কালিগঞ্জ উপজেলার খরসেদ আলীর ছেলে মাহবুব,জহুর আলীর ছেলে মোস্তফা কামাল ও আলিম উদ্দিনের ছেলে জনি(চালক)।জানা গেছে চালক জনির অবস্থা আশঙ্কা জনক।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here