monir বাঁচানো গেলো না অগ্নিদগ্ধ কিশোর মনির হোসেনকে। গতকাল ভোরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সে মারা যায়। হাসপাতালে বার্ন ইউনিটের আইসিইউতে মনিরের চিকিৎসা চলছিল। গত শনিবার মনিরের বাবা রমজান আলী বাড়ি থেকে কাজে রওনা হওয়ার সময় ছেলে মনির তাকে সঙ্গে করে নিয়ে যেতে আবদার করে। ছেলের আবদার রাখার জন্যই তিনি তাকে নিয়ে যান। গাজীপুরে রমজান আলী কাভার্ড ভ্যান দাঁড় করিয়ে হরতাল পরিস্থিতি দেখার সময় দুর্বৃত্তরা ওই গাড়িতে আগুন দেয়। এতে মনিরের শরীরের ৯৫ শতাংশ ঝলসে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। কাভার্ড ভ্যানে আগুন দিয়ে মনিরকে অগ্নিদগ্ধ করার অভিযোগে যুবদল নেতা শওকত বাবুকে প্রধান আসামি করে ও গাজীপুর জেলা জামায়াতের আমীর আবুল হাশেম খানসহ ১৮ দলের ৮৪ জন নেতাকর্মীর নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে। জয়দেবপুর থানায় এস আই হাফিজুর রহমান বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেছেন। বিশেষ ক্ষমতা আইনের দায়ের করা ওই মামলাটির সঙ্গেই হত্যা মামলা ধারা যুক্ত করা হবে। অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যাওয়া মনিরের বাড়ি গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার বড়কাঞ্চনপুর গ্রামে। দুই ভাইয়ের মধ্যে মনির ছিল বড়। সেখানেই মা আর ছোট ভাইয়ের সঙ্গে থাকতো মনির। বাবা কাভার্ড ভ্যান চালক রমজান আলী থাকতেন গাজীপুর শহরে

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here