article আগ্ণেয়গিরির অগ্ণ্যুদ্গীরণে প্রশান্ত মহাসাগরের বুকে জেগে উঠল নতুন এক দ্বীপ৷ মাত্র ২০০ মিটার ব্যাসযুক্ত এই সদ্যোজাত দ্বীপের অবস্থান টোকিওর দক্ষিণে নিশিনোশিমা দ্বীপের (বোনিন দ্বীপপুঞ্জ) অদূরেই৷ জাপানের উপকূল রক্ষী(জেসিজি) এবং ভূমিকম্প-বিশেষজ্ঞদের তরফে এ কথা জানানো হয়েছে৷
গতকালই এক বিজ্ঞপ্তিতে জেসিজি-র তরফে এই দ্বীপপুঞ্জও তার আশপাশের এলাকায় সমুদ্রের তলদেশ থেকে অগ্ণ্যুত্পাতের আশঙ্কায় সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছিল৷ সেই মতো বুধবার থেকেই শুরু হয় অগ্ণ্যুত্পাত৷ মূহূর্তের মধ্যেই প্রায় ৬০০ মিটার উচ্চতার ঘন, কালো ধোঁয়ায় ভরে যায় নিশিনোশিমা দ্বীপের দক্ষিণপ্রান্ত৷ ধোঁয়ার সঙ্গেই বেরিয়ে আসতে থাকে ছাই, পাথরের টুকরো জাতীয় আগ্ণেয় পদার্থ৷ সুউচ্চ ধোঁয়ার নিচেই সঞ্চিত হতে শুরু করে সেগুলি৷ পরে দেখা যায়, মহাসাগরের বুকে ডিম্বাকৃতি একটি নতুন দ্বীপের সৃষ্টি হয়েছে এইভাবে৷ কিন্তু হঠাত্‍ জেগে ওঠা নতুন এই দ্বীপের স্হায়িত্ব কতদিন? অগ্ণ্যুত্পাত বিশেষজ্ঞ হিরোশি ইটোর মতে, নতুন এই দ্বীপ যেমন ক্ষয়ের ফলে অচিরেই নিশ্চিহ হয়ে যেতে পারে, তেমনি আবার টিকেও যেতে পারে চিরকালের জন্য৷ বিজ্ঞানীদের দাবি, প্রশান্ত মহাসাগরীয় আগ্ণেয় মেখলার অন্তর্গত জাপান ভূখণ্ডের এই অংশে অগ্ণ্যুত্পাতের ফলে নতুন দ্বীপের সৃষ্টি এবং বিনাশ কোনও নতুন ঘটনা নয়৷ তবে এই নতুন দ্বীপের নামকরণ নিয়ে এখনই চিন্তাভাবনা করতে রাজি নয় জাপান সরকার৷ তাদের দাবি, সদ্যোজাত দ্বীপটির গঠন সম্পূর্ণ হলেই তাকে জাপানের মূল ভূখণ্ডের অন্তর্গত করার বিষয়ে ভাববে তারা৷ তখনই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে এর নামকরণ নিয়েও৷

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here